ঢাকাশুক্রবার , ১২ মে ২০২৩
  1. Bangla
  2. chomoknews
  3. English
  4. অপরাধ
  5. অভিনন্দন
  6. আমাদের তথ্য
  7. কবিতা
  8. কর্পরেট
  9. কাব্য বিলাস
  10. কৃষি সংবাদ
  11. খুলনা
  12. খোলামত
  13. গল্প
  14. গাইড
  15. গ্রামবাংলার খবর
আজকের সর্বশেষ

দেশব্যাপী সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে সিলেটে বিএমএসএস এর মানববন্ধন

চমক নিউজ বার্তা কক্ষ
মে ১২, ২০২৩ ৭:৪১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

দেশব্যাপী সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে সিলেটে বিএমএসএস এর মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক ।। সাংবাদিকদের উপর হামলা, নির্যাতন ও দায়েরকৃত সাজানো মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে এবং দেশব্যাপী সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি (বিএমএসএস) সিলেট বিভাগীয় কমিটির উদ্যোগে কেন্দ্রীয় পূর্ব ঘোষিত প্রতিবাদী মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। গত বুধবার (১০ মে) বিকেলে সিলেট নগরীর চৌহাট্টাস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়।

সুনামগঞ্জে যমুনা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম ও রাজশাহীর পুঠিয়ায় সাংবাদিক সোহানুর রহমান সোহান’র উপর হামলা, বিএমএসএস কেন্দ্রীয় নেতা মানসুর জাহিদ, পাইকগাছা উপজেলা কমিটির সেক্রেটারি ফাঁসিয়ার রহমান এবং আসাদুলসহ ৪ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডাঃ মামুন কর্তৃক দায়েরকৃত সাজানো মিথ্যা চাঁদাবাজি মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এ মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়।

সিলেট বিভাগীয় রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসানের সঞ্চালনায় ও বিএমএসএস সিলেট বিভাগীয় কমিটির সভাপতি ও দৈনিক ভাটি বাংলা প্রধান সম্পাদক এস এম ওয়াহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- সিলেট জজকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ও বিএমএসএস সিলেট বিভাগীয় কমিটির উপদেষ্টা এডভোকেট ওবায়দুর রহমান, হিউম্যান রাইট ওয়াচ ট্রাস্ট অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মো: দেলোয়ার হোসেন খান, বিএমএসএস কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিক মোহাম্মদ হানিফ, সিলেট বিভাগীয় রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার সিলেট প্রতিনিধি সুনির্মল সেন, মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা সিলেট বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক মনোরঞ্জন তালুকদার, জেলা সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব তারা মিয়া, বিএমএসএস কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ মিয়া, কেন্দ্রীয় পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোহন আহমেদ, বিএমএসএস কেন্দ্রীয় সহসম্পাদক নিজাম উদ্দিন,বিএমএসএস সিলেট বিভাগীয় কমিটির সহ সভাপতি খালেদ মিয়া, বিমএসএস সিলেট বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, সাংগঠনিক সম্পাদক তুষার চৌধুরী, সিলেট বিভাগীয় রিপোর্টার্স ক্লাব’র সহ সভাপতি মোশাররফ হোসেন খান, প্রচার সম্পাদক শহিদ আহমদ খান, মানবাধিকার ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট অব বাংলাদেশ সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সচিব হোসাইন মোঃ ইমরান, সোসাইটি অব জাতীয় গণমাধ্যম কমিশনসিলেট বিভাগীয় শাখার সভাপতি আব্দুল মুক্তাদির, ভাটি বাংলা মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেড পরিচালক আব্দুল গফফার, ভাটি শিকর সম্পাদক বাউল রওশন জলিল কোরেশি, নির্বাহী সদস্য ফয়জুল আলী শাহ, সহকারী সম্পাদক জাগ্রত সিলেট স্টাফ রিপোর্টার ফখরউদ্দিন, শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক আক্তার হোসেন, বেঙ্গল ভয়েস সম্পাদক জয়দ্বীপ চক্রবর্তী, বাংলা টাইম টিউন রাজন আহমদ আরিয়ান, সাপ্তাহিক হলি সিলেট স্টাফ রিপোর্টার এ এ রানা, ৫২ টেলিভিশন প্রতিনিধি লাকি আহমেদ, বাংলাদেশ সেন্ট্রাল প্রেসক্লাব কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও দৈনিক ভোরের সময় সিলেট প্রতিনিধি ফয়সল কাদির, সমাজ সেবক মিনহাজুল ইসলাম, নাসিম হোসাইন, বিমএসএস সিলেট বিভাগীয় সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক তুহিনুর রহমান শাহজাহান, সহকারী সম্পাদক মো: নুরুল আমিন, ফোজায়েল আহমদ, শামছুর রহমান জাবেদ, কার্যনির্বাহী সদস্য মো: ফয়সাল মাহবুব, দৈনিক খবরপত্র প্রতিনিধি মো: ইউসুফ, সিলেট বিভাগ বিএমএসএস নির্বাহী সদস্য এনাম উদ্দীন সামী, মো: লিমন আহমদ সদস্য, সাংবাদিক ইউনিয়ন সিলেট প্রমূখ সহ প্রায় শ’খানেক সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিনিয়র আইনজীবী এ্যাডভোকেট ওবায়দুর রহমান বলেন- “সাংবাদিক নির্যাতন ও মিথ্যা মামলা দায়ের এটা নতুন নয় তা বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরবর্তী সময় থেকেই চলে আসছে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশের কারণে কাউকে মোবাইল চুরির মামলা দিয়ে জেলে ডোকানো হচ্ছে, কাউকে মাদকের মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে, বিশেষ বাহিনীর মাধ্যমে হত্যা ঘুম ও অকথ্য ভাষা ব্যবহার করে নির্যাতনের ভয় দেখিয়ে কারোর কাছ থেকে স্বীকারোক্তি নেওয়া হচ্ছে, এমকি হত্যা করা হচ্ছে। আজো সাগর রুনির হত্যা মামলার কোন কূল কিনারা হয়নি! জাতি জানতে চায় এই সাংবাদিক দম্পতির হত্যা মামলার কি হলো।”

প্রধান বক্তার বক্তব্যে বিএমএসএস কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান সিনিয়র সাংবাদিক মোহাম্মদ হানিফ বলেন- “আমি স্বাধীনতার পর থেকেই দেখে আসছি যারা নিজের জীবন বাজি রেখে শ্রম, মেধা, সময় ও টাকা ব্যয় করে তথ্য সংগ্রহ করে তথ্যবহুল সংবাদ প্রকাশ করেন তারা দীর্ঘকাল ধরেই বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন, তাদের উল্টো আঘাত পেতে হয় এবং তাদের পাশে দাঁড়াতে কাউকে পাওয়া যায়না।”

সাংবাদিকদের অনৈক্যের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘অনেক সিনিয়র সাংবাদকর্মী ভাইয়েরা রয়েছেন আপনারা জানেন আজ সাংবাদিকরা কেন বৈষম্যের শিকার। এখনো সময় আছে, আসুন আমরা-আপনারা সবাই ঐক্য গড়ে তুলি। কারণ ঐক্যের বিকল্প নেই।’

আমরা একজন আরেকজনের পিছনে এইজন্য বৈষম্যের অবসান হচ্ছেনা। আমরা একদল আছি তেলবাজি ভালোবাসি, তেলবাজি ছাড়া চলেনা, নিজের আমিত্ব, বড়ত্ব, আমাদের আত্ম অহংকারী কিছু লোক সহকর্মীদের সহনুভূতির দৃষ্টিতে দেখতে পারিনা। যার কারণে সংবাদপত্রের সাথে জড়িত সাংবাদিকদের একশ্রেনীর সন্ত্রাসীরা সুযোগ বুঝে নিপীড়ন ও নির্যাতন করে।

২০২২ সালে সারাদেশে ১১৯ জন সাংবাদিক নিপীড়ন ও নির্যাতনের স্বীকার হয়েছেন। বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের রিপোর্টে জানাগেছে- এর ম অধ্যে ৩৮ জন তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে সরাসরি সন্ত্রাসীদের আঘাতে আহত হয়েছে। চলতি বছর ২৩ সাল শুরু হয়েছে নারায়ণগঞ্জের এশিয়ান টিভির সাংবাদিক নির্যাতনের মাধ্যমে।

যারা মাঠ পর্যায়ে কাজ করে অনেক পরিশ্রম করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে তারা ঠিকমতো বেতনও পায়না। আমরা একদল আরেক দলের পিছনে লেগে থাকি, সম্মিলিত ভাবে আমরা প্রতিবাদ করতে পারিনা বলেই আজ সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা বেড়েছে।

আমরা বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি বিএমএসএস দলমত নির্বিশেষে মুক্ত সাংবাদিকতার পক্ষে সংবাদকর্মীদের পাশে আছি এবং থাকবো ইনশা আল্লাহ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ ট্রাস্ট অব বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান মোঃ দেলোয়ার হোসেন খান বলেন- “সত্য উদঘাটন ও উন্মোচন করে সাংবাদিক। আর এই সাংবাদিকদের সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হতে হচ্ছে। সাংবাদিকরা অনেক কষ্টের বিনিময়ে সত্য উদঘাটন করে পত্রিকার মাধ্যমে সমাজ ও জাতির সামনে তুলে ধরেন।

তাদের রুঁখে দিতেই সিলেটসহ সারাদেশে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা, হামলার ঘটনা ঘটছে।” আজকের এই শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন থেকে আমার মানবাধিকার সংগঠনের পক্ষ থেকে সাংবাদিক সমাজের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করলাম। সাংবাদিকরা সমাজের দর্পন।

সেই দর্পনে আমরা সমাজ ও দেশের বাস্তবচিত্র দেখতে পাই, তাই অবাধ তথ্য ও মুক্ত সাংবাদিকতার অধিকারের প্রতি আমাদের জোরালো সমর্থন থাকবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিলেট রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক সুনির্মল সেন বলেন, “সাংবাদিক নির্যাতনকারী কালো আইন বাতিলের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আনুরোধ জানাই, সাংবাদিক নির্যাতন ৭১ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত অব্যাহত আছে, নির্যাতন ও খুনের ঘটনার বিচারহীনতাই আরও সাংবাদিক নির্যাতন ও নিপীড়নকে উৎসাহিত করছে।”
সভাপতির বক্তব্যে বিএমএসএস সিলেট বিভাগীয় সভাপতি এস এম ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন-“রোদ্রেরখড়তাপের মাঝে ব্যাপক সংখ্যাক সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মী মানববন্ধনে উপস্থিত হওয়ায় সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।’’

স/এষ্