ঢাকামঙ্গলবার , ২ আগস্ট ২০২২
  1. Bangla
  2. chomoknews
  3. English
  4. অপরাধ
  5. অভিনন্দন
  6. আমাদের তথ্য
  7. কবিতা
  8. কর্পরেট
  9. কাব্য বিলাস
  10. কৃষি সংবাদ
  11. খুলনা
  12. খোলামত
  13. গল্প
  14. গাইড
  15. গ্রামবাংলার খবর

জিম্বাবুয়ের কাছে প্রথম সিরিজ হারল বাংলাদেশ

রাহুল রাজ
আগস্ট ২, ২০২২ ৮:৫৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

জিম্বাবুয়ের কাছে প্রথম সিরিজ হারল বাংলাদেশ

টি-টোয়েন্টিতে হারের বৃত্তে আটকে যাওয়া বাংলাদেশ দল দীর্ঘদিন পর জিম্বাবুয়ে বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে জয় পায়। তবে সেই জয়ের ধারা ধরে রাখতে পারেনি টাইগাররা। প্রথম ম্যাচ হারের পর গতকাল তৃতীয় ও শেষ ম্যাচেও হেরে যায় ১০ রানের ব্যবধানে। এতে ১-২ ব্যবধানে সিরিজ হারল সফরকারীরা। এই হারের ফলে প্রথমবারের মতো জিম্বাবুয়ের কাছে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খোয়াল বাংলাদেশ।

নাসুমের এক ওভারে ৩৪ রানই কাল হয়ে দাড়ায় দিন শেষে। প্রথম ইনিংসের পনেরো ওভার পর্যন্ত বাংলাদেশ খেলায় ছিল। এর পরেই পাশা বদলে যায়। রং পালটে যায় খেলার। যেখানে একশত রানের আগেই গুটিয়ে যাবার কথা ছিল জিম্বাবুয়ের সেখানে রায়ান বার্লের ঝোড়ো ফিফটিতে ১৫৬ রান সংগ্রহ করে দলটি। গতকাল হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে অধিনায়ক বদলালেও টস ভাগ্যের পরিবর্তন হয়নি বাংলাদেশ দলের। আগের দুই ম্যাচের অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহানের মতো এদিনও টস হারেন নতুন অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

১৩ ওভারে ৬৭ রানে ৬ উইকেট হারানো জিম্বাবুয়েকে সেখান থেকে টেনে তোলেন রায়ান বার্ল আর লুক জংওয়েও। ইনিংসের ১৫তম ওভারে ৫টি ছয় ও ১ চারের সাহায্যে নাসুমের ওভার থেকে বার্ল তুলে নেন ৩৪ রান। টি- টোয়েন্টিতে এটি বাংলাদেশি কোনো বোলারের সবচেয়ে খরুচে ওভার। এর আগে ২০১৯ সালে মিরপুরে এই বার্লই সাকিব আল হাসানের এক ওভার থেকে তুলেছিলেন ৩০ রান। ২ চার ৬ ছয়ে মাত্র ২৪ বলে ফিফটি তুলে নেন বার্ল। ২৮ বলে ৫৪ রানে থামেন তিনি।

বার্লকে ফিরিয়ে ৩১ বলে ৭৯ রানের সপ্তম পার্টনারশিপ ভাঙেন হাসান মাহমুদ। জংওয়েওর ব্যাট থেকে আসে ২০ বলে ৩৫ রান। ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রানের চ্যালেঞ্জিং পুঁজি তুলে নেয় জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিজেদের করে নিতে আফ্রিকার এই দেশের নিজেদের বোলারের প্রতি বিশ্বাস ছিল। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সাজ ঘরে আসা যাওয়ার মিশিলে যোগ দেয় টিম বাংলাদেশ। আনলাকি ১৩! তে শুরু হয় প্রথম উইকেট পতন। ১৫৭ রানের লক্ষ্য টপকাতে নেমে জিম্বাবুয়ের বোলারদের কাছে ধরাশায়ী টাইগার ব্যাটসম্যানরা। শেষদিকে কিছুটা আশা জাগলেও তাদের ইনিংস থামে ১৪৬ রানে।

নিজেদের দ্বিতীয় ওভারেই সাজঘরে ফেরেন লিটন দাস। ভিক্টর নিয়াউচিকে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন এই ডানহাতি। ৬ বলে ১৩ রান করেন তিনি। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অভিষেক ক্যাপ পাওয়া পারভেজ হোসেন ইমন ২ রানের বেশি করতে পারেননি।

দলে আবারও সুযোগ পেয়ে আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি এনামুল হক বিজয়ও। আরো একবার ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। ১৩ বলে ১৪ রান করে বোল্ড হন। এতে ৩৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে বাংলাদেশ। সেই বিপদ আর কাটিয়ে উঠতে পারেনি সফরকারী শিবির। নাজমুল হোসেন শান্ত ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ কিছুটা আশা দেখালেও সেট হয়েও নিজেদের ইনিংস বড় করতে পারেননি তারা।
ওয়ানডে মেজাজের ব্যাটিংয়ে ২০ বলে ১৬ রান করে সাজঘরে শান্ত। যেখানে কোনো বাউন্ডারির মার ছিল না তার।

শান্তর এমন শম্ভুক গতির ইনিংস দলের বিপদ আরো বাড়িয়েছে। দলে ফেরা মাহমুদউল্লাহ খানিক চেষ্টা করলেও সুবিধা করতে পারেননি। ইনিংসের ১৩তম ওভারে ইভানসের বলে আউট হন ২৭ বলে ২৭ করে। পরের বলে এসেই পুল করতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন এক ম্যাচের জন্য অধিনায়কত্ব পাওয়া মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। শূন্য রানে ফেরেন তিনি।

শেষদিকে আফিফ হোসেন আর শেখ মেহেদী হাসান চেষ্টা চালালেও লাভ হয়নি তাতে। সপ্তম উইকেটে তাদের দুইজনের ২৪ বলে ৩৪ রানের জুটি পরাজয়ের ব্যবধানই কমিয়েছে শুধু। মেহেদী ১৭ বলে ২২ রান করে আউট হলে ভাঙে এই জুটি। আফিফ ২৭ বলে ৩৯ রানে অপরাজিত থেকে হারের সাক্ষী হয়েছেন শুধু।

স/এষ্