কক্সবাজারের টেকনাফ বঙ্গোপসাগরে ফিশিং ট্রলারে ডাকাতির ঘটনায় নিখোঁজ ট্রলারসহ ৩ জেলে কূলে ফিরে এসেছে। বৃহস্পতিবার সকালে ডাকাতের হাত থেকে রক্ষা পেয়ে শাহপরীর দ্বীপ জেটি ঘাট এলাকায় ট্রলারসহ ৩ জেলে ফিরে আসেন।

এরা হলেন ট্রলার মাঝি শাহপরীর দ্বীপ বাজার পাড়ার আমিন উল্লাহ, উত্তর পাড়া এলাকার মো. নূর, ডেইল পাড়া এলাকার মো. কাশেম।

ফিরে আসা জেলেরা জানান, সাগরে মাছ শিকাররত অবস্থায় আমাদের (৭ জন) অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সাগরে ফেলে দেয়। পরে আমাদের ট্রলার নিয়ে পাশের বেশ কয়েকটি ট্রলারে হামলা ও লুটপাট চালিয়ে অনেক দূরে নিয়ে যায়। এসময় মনে হয়েছিল আজকেই শেষ দিন। তবে পরিবার-পরিজনের দোয়ায় আল্লাহর রহমতে সব কিছু নিয়ে রাতে আমাদের ছেড়ে দিলে কোনো মতে চলে আসতে পেরেছি।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার গভীর রাতে শাহপরীরদ্বীপ পশ্চিম বঙ্গোপসাগরের ১২ বাইন এলাকায় শাহপরীর দ্বীপ ডেইলপাড়ার সুলতান আহাম্মদ মাঝির দুই ট্রলার, উত্তর পাড়ার হোসন মাঝি, মাঝর পাড়ার রহিম উল্লাহ মাঝি, মিস্ত্রি পাড়ার শমসুর ৫ ট্রলার মাছ শিকারকালে হঠাৎ একদল জলদস্যু সুলতান মাঝির ট্রলারে উঠে মাঝিসহ তিনজনকে রেখে ৭ জেলেকে সাগরে ফেলে দেয়। পরে এ ট্রলার নিয়ে অন্য ট্রলারের মাঝি-মাল্লাদের হামলা ও লুটপাট চালিয়ে ইঞ্জিন নষ্ট করে দেয়।

ট্রলার মালিকরা ডাকাতির খবরে অন্য ট্রলার পাঠিয়ে সাগরে ভাসমান ৪ ট্রলারসহ সাগর থেকে জেলেদের উদ্ধার করলেও একটি ট্রলারসহ আমিন উল্লাহ, মো. নূর, মো. কাশেম নিখোঁজ ছিল। ভাসমান ট্রলারসমূহ অন্য ট্রলারের সাহায্যে টেনে নিয়ে আসা হয়। পরে নিখোঁজ ট্রলার ও জেলেদের বিভিন্ন স্থানে খুঁজে না পেয়ে ট্রলার মালিক টেকনাফ মডেল থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করেন।

স/শা

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন