♦ সাঈদ ইবনে হানিফ-বাঘারপড়া: যশোরের বাঘারপাড়ায় প্রকাশ্যে জনসম্মুখে ধূমপান করার অপরাধে এক ব্যক্তিকে জরিমানা করেছে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এছাড়াও যন্ত্রতন্ত্র ভাবে দোকানে রাখা বিড়ি-সিগারেট উদ্ধার করে সেগুলো পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এ অভিযোগে উপজেলার ধূমপায়ী ও মাদকজাত দ্রব্য ব্যবসায়ীরা এক হয়ে গত মঙ্গলবার দোকানপাট বন্ধ রেখে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক গঠিত ভ্রাম্যমান আদালতের বিরুদ্ধে আন্দোলন ও ধর্মঘট চালিয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ১৪ ফেব্রুয়ারী, দুপুর ১২টা থেকে রাত পর্যন্ত এ ধর্মঘট চলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্সের প্রধান ফটকের পাশে চায়ের দোকানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহনাজ বেগম ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় রাসেল টি স্টোর নামে চায়ের দোকানে এক ব্যক্তি ধূমপান করছিলেন। ধূমপানের অপরাধে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাকে ২ শত টাকা জরিমানা করেন। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে চায়ের দোকানে থাকা কিছু বিড়ি ও সিগারেট পুড়িয়ে দেয়া হয়্ বিড়ি, সিগারেট পোড়ানোর ইস্যু নিয়ে ব্যবসায়ীলা ১২ টার দিকে সব ধরনের দোকান বন্ধ করে দেন। এরপর বেলা ১টার দিকে থানার ওসি মতিয়ার রহমানসহ ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ নির্বাহী অফিসারের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে ব্যবসায়ী ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ বিভিন্ন দিক নিয়ে কথা তোলেন। নির্বাহী অফিসার শাহানাজ বেগম এ সময় বলেন, নিয়ম অনুযায়ী মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। সব ব্যবসায়ীকে জানান দেয়ার জন্য আমি আইনের সামান্য অংশ প্রয়োগ করেছি। ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য আইনে যে শাস্তির বিধান রয়েছে মানবিক কারণে তা এক্ষেত্রে শিথিল করা হয়েছে। আলোচনায় ব্যবসায়ী ও ধূমপায়ীরা সন্তোষজনক সিদ্ধান্ত না পাওয়ায় দোকানপাট না খুলে জেলা প্রশাসকের উদ্দেশ্যে রওনা হন। এ বিষয়ে চৌরাস্তা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি জয়নাল আবেদিন জানান, ডিসি স্যার না থাকায় এডিসি জেনারেল স্যারের হাতে স্মারকলিপি দিয়ে এসেছি। তিনি আমাদের শান্ত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।
এ বিষয়ে দৈনিক আমাদের কণ্ঠ প্রতিবেদককে স্থানীয় মানাবাধিকার সংস্থা গণ অধিকার ফাউন্ডেশনের পরিচালক মোঃ একরামুল হক মিঠু বলেন, প্রাথমিকভাবে এমন একটি পদক্ষেপ নেওয়ায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে ধন্যবাদ না জানিয়ে উপায় নেই। তিনি বলেন যন্ত্রতন্ত্রভাবে ধূমপানের কারণে পরিবেশের যেমন ক্ষতি হচ্ছে তেমনি মাদকের প্রাথমিক স্তর ধূমপানে আসক্ত হয়ে আমাদের সন্তানেরা বিভিন্ন প্রকার নেশায় আষক্ত হয়ে তাদের সুন্দর ভবিষ্যত নষ্ট করছে। ধূমপান ব্যবসায়ী ও ধূমপায়ীদের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ সকল প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের সমন্বয়ে সচেতনতা বাড়ানো সহ ধূমপান ও মাদকজাত দ্রব্য বন্ধে কার্য্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করা প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি।

স/ এষ্

         
print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন