♦ জাহিদুল ইসলাম, কাঠালিয়া (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি : কাঠালিয়া উপজেলার আওরাবুনিয়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ সিকদার হত্যা মামলার বাদী মাসুদের ছোট ভাই জাহিদুল ইসলাম মামুনকে আসামিরা মামলা তুলে নিতে প্রতিনিয়ত হুমকী দিয়ে আসছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মামলা তুলে না নিলে বড় ভাইয়ের মত তাকেও প্রাণে শেষ করারও হুমকী দেয় আসামী পক্ষ। এ ঘটনায় ১২জনের নাম উল্লেখ করে গত ১১ ফেব্রুয়ারি কাঠালিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়রী (নং ৪২৯) করা হয়েছে।

মামলার বাদী জাহিদুল ইসলাম মামুন জানান, হত্যা মামলার এজারভূক্ত ২নং আসামী মিজান সিকদার সহ অন্য আসামীরা জামিনে জেল থেকে বেরিয়ে দ্রুত মামলা তুলে নিতে আমাকে ও পরিবারের লোকজনকে প্রকাশ্যে ও মোবাইলে প্রাণ নাশ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি সাধনসহ বিভিন্ন ভাবে হুমকী ও ভয়ভীতি দিয়ে আসছে। বিশেষ করে আসামী মিজান সিকদার (০১৭১৫৬৩৪১০৬ ও ০১৭৩৫২০৪৫৬১) এই মোবাইল নম্বর দিয়ে ক’দিন পর পর আমাকে হুমকী দিচ্ছে। এ ঘটনায় চরম নিরাপত্তায় দিন কাটছেন ভাই হত্যা মামলার বাদী জাহিদুল ইসলাম মামুন সিকদার।
২০১৫ সনের ১০ জুলাই কাঠালিয়ার সাতানী বাজারে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মাসুদ সিকদারকে হত্যা করে দূর্বৃত্তরা। দুই দিন পর বিভিন্নস্থান থেকে হাত, পা ও মস্ককবিহীন মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মাসুদের ছোট ভাই জাহিদুল ইসলাম মামুন ১৩জুলাই রিপন তালুকদার ও মিজান সিকদারসহ ১০জনের নামে কাঠালিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় এজারভূক্ত ও সন্দেহভাজন ১২জন আসামী গ্রেফতার হয়। সবাই বর্তমানে জামিনে রয়েছে। মামলাটি এখন সিআইড বিভাগে তদন্তাধীন।

স/শা

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন