ফিরোজ জোয়ার্দ্দার:
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় রায়টা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি দখল করে বসত বাড়ি নির্মান করার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার রায়টা নতুন বাজারে ওই স্কুলটির অবস্থান। এলাকাবাসীর দেয়া অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে রায়টা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয় ১৯২৯ সালে। পরে ফ্যাসিলিটিজ ডিপার্টমেন্ট পূর্ন নির্র্মান করে ১৯৯৭ সালে। এই স্কুলটির নামে রেকর্ড হয় ৮৪শতক জমি। এই জমিতে হয়েছে বড় একটি খেলার মাঠ। রাস্তার ধারে স্কুলটি হওয়ায় এলাকার কোমলমতি শিশুরা সহজে স্কুলে পাঠ দান করতে পারে। বর্তমানে স্কুলটির প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন সুলতানা সানজিদা নাসরিন। স্কুল পরিচালনা পরিষদের দায়িত্বে রয়েছেন ইউপি সদস্য আলী আহম্মদ। এলাকাবাসী ও স্কুল পরিচালনা পরিষদের কর্মকর্তাদের সাথে কথা হলে জানা যায় দীর্র্ঘদিন ধরে ওই এলাকার মৃৃত জান আলীর ছেলে মেহের আলী দালাল স্কুলের সামনে বড় একটি জায়গা দখল করে নিজ গৃহ নির্মান করে সেখানে মুুরগি ছাগল পালন করছেন। একই সাথে সেখানে একটি খোলা বাথরুম করে পরিবেশ নষ্ট করে চলছেন। বর্র্তমানে দূর্গন্ধে ওই স্কুলের পথ দিয়ে যাওয়ার মতো কোন পরিবেশ নেই। গত কয়েকদিন আগে স্কুলেন ২টি শিশু দূর্গন্ধে বমি করে অসুস্থ হয়ে স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি হয়। স্কুলের কোমলমতি শিশু শিক্ষকরা যেতে ও অবস্থান করতেও কষ্ট পাচ্ছেন। তাদের মতো স্কুলে গেলে দূর্গন্ধে শিক্ষক ও শিক্ষার্র্থীদের গা বমি বমি করছে। এখনই ব্যবস্থা না নিলে হয়তো মাঝে মধ্যে স্কুলটি বন্ধ হওয়ার উপক্রম হতে পারে। এছাড়া ওই স্কুলের জমি অবৈধভাবে ফজলু সরদার, দাউদ দর্জি, সন্তোষ, মাফু দর্জি, মান্নান সরদার, ছাত্তার দালাল, খোরশেদ গাজি,সাবলু বিশ্বাস, দখল করে দোকান ঘর নির্মান করছেন। এখনই সেগুলো দখলমুক্ত করতে বা উচ্ছেদ না করা হলে স্কুলের জমি সব দখল হয়ে যেতে পারে। বর্তমানে ওই ব্যক্তিরা ৭ কাঠা জমি দখল করে নিয়েছেন বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে।

স/এষ্

print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন