বগুড়া প্রতিনিধি: অপরাধীদের হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন বগুড়া সিআইডির সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) হাসান শামীম ইকবাল। অপরাধ নির্মূলে গ্রাম, পাড়া, মহল্লায় প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। অপরাধী যেই হোক’ তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।
আমাদের প্রতিনিধি নজরুল ইসলামের সাথে আলোচিত মামলার তদন্ত অগ্রগতি প্রসঙ্গে সাক্ষাৎকারে সিআইডির এএসপি ইকবাল বলেন, বগুড়া জেলাকে জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাস, মাদকমুক্ত করতে জেলা পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান বিপিএম প্রয়োজনে কঠোর থেকে আরোও কঠোর। অপরাধী যেই হোক, আইনের আওতায় আসবেই। সাক্ষাৎকারে এএসপি ইকবাল বলেন, অপরাধ নির্মূলে দলমত নির্বিশেষে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সকলের সহযোগীতা প্রয়োজন। জনসাধারন সচেতন হলে অপরাধ নির্মূল করা সম্ভব।
খোজ নিয়ে জানা গেছে, ২০০৫ সালে হাসান শামীম ইকবাল বগুড়া জেলার ধুনট থানায় পুলিশ পরিদর্শক হিসেবে যোগদান করেন। এরপর বগুড়ার শেরপুর থানা, নওগার আত্রাই, বগুড়া সদর, দুপচাঁচিয়া, দিনাজপুরের কোতয়ালী রংপুরের পীরগঞ্জ, মিঠাপুকুর ও সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর থানায় দক্ষতার সাথে দ্বায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি অপরাধ মোকাবেলায় জীবন বাজি রেখেও কাজ করেছেন। তিনি মাদক, জুয়া ও সন্ত্রাসমুক্ত উপজেলা উপহারের ব্রত নিয়ে ২০১৫ সালের ৩১ আগষ্ট বগুড়ার নন্দীগ্রাম থানায় যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকেই থানার চিত্র পাল্টে যায়। কমে যায় মাদক ও জুয়ার আড্ডা। অনেক মাদক ব্যবসায়ী, কুখ্যাত ডাকাত ও রাঘব-বোয়ালদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। এসব কর্মকান্ড দেখে অপরাধীরা দিশেহারা হয়ে পড়ে। অপরাধীদের আতঙ্ক হিসেবে পরিচিত হাসান শামীম ইকবাল পদোন্নতি পেয়ে গত বছরের ২৮ সেপ্টেম্বর বগুড়া সিআইডির এএসপি হিসেবে যোগদান করেন। এমন দক্ষ ও পরিশ্রমি কর্মকর্তা বারবার ফিরে পেতে চান বগুড়াবাসী।

স/এষ্

print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন