লক্ষ্মীপুর সদর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরে আদালতের আদেশ অমান্য করে স্থায়ী ইমারত নির্মানের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেন ভূক্তভোগী পরিবার। লক্ষ্মীপুর শহরস্থ উত্তর বাজারে একটি পত্রিকা কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিরীহ পরিবারের ফাতেমা আক্তার পপি।

জানা যায়, লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা পৌরসভা ১০নং ওয়ার্ডস্থ মজুপুর গ্রামে নুর মোহাম্মদের ওয়ারিশ আবদুর রহিমের স্ত্রী নাহার গং দীর্ঘদিন থেকে মজুপুর মৌজার ডিএস ১৬১নং খতিয়ানের অধীন ১৬২নং খতিয়ান ভূক্ত ১১০১/১১০২ দাগ যাহা বর্তমান রিভিশন জরিপী ১৫৮নং খতিয়ান ভুক্ত ৫৫৪৮ দাগে ৫ শতক ভূমি চৌহদ্দি উল্যেখ পূর্বক মালিকানা থাকিয়া শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করিয়া আসিতেছে।

সংবাদ সম্মেলনে তারা জানান, তাদের পিতা জিবীত থাকা কালিন রিক্সা চালিয়ে খুব কষ্ট করে বিভিন্ন দলিল মূলে ওই জমি ক্রয় করেন। পিতার মৃত্যুর পর সামছুন্নাহার গং মালিক দখলকার হয়। উক্ত দখলীয় জমি একই এলাকার প্রভাবশালী মৌলভী অজিউল্যা খানের পুত্র ওবায়েদুর রহমান খান জোরপূর্বক জবর-দখল করে পাকা ইমারত নির্মান করার চেষ্টা চালায়। এতে আমরা বাঁধা দিলে প্রতিপক্ষরা ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্ন ধরনের হুমকী ধমকী দিয়ে বাধা উপেক্ষা করে জোরপূর্বক তফছিল ভূমিতে অবৈধভাবে প্রবেশ করিয়া বেদখল করার উদ্দেশ্যে মাটি ভরাট ও ইমারত তৈরী করার প্রস্তুতি নিলে আমরা লক্ষ্মীপুর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে উক্ত কাজ বন্ধ রাখার জন্য নিষেধাজ্ঞা চেয়ে মিছ মামলা নং- ১৩৩/১৭ দায়ের করি।

বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে লক্ষ্মীপুর সদর থানার মাধ্যমে প্রতিপক্ষ অহিদুর রহমানকে স্থিতিঅবস্থা বজায় রাখতে নোটিশ জারি করেন। প্রতিপক্ষরা নোটিশ পাওয়ার পর ও কোন কর্ণপাত না করে তাদের সকল কাজ অব্যাহত রাখে। এতে করে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে দঃ বিঃ ১৮৮ ধারা বিধান মোতাবেক কার্যক্রম গ্রহনের জন্য বিজ্ঞ আদালতে অভিযোগ দায়ের করি। কিন্তু প্রতিপক্ষ ওবায়দুর রহমান সকল আদেশ- নির্দ্দেশকে অমান্য করে প্রভাব খাটিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় ভূমি দস্যুদের কবল থেকে রক্ষা পেতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইনমন্ত্রী সহ স্থানীয় প্রশাসনের প্রতি উদাত্ত আহবান জানাই। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মামলার বাদী সামছুন্নাহার ও তার বিকটতম আত্মীয় মোঃ বাবর হোসেন।

স/এষ্

print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন