এ.কে.আজাদ (জেলা প্রতিনিধি) লক্ষ্মীপুর :
লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোঃ নুরনবী চৌধুরী এর সঙ্গে একান্ত স্বাক্ষাতকারে মিলিত হয়েছেন প্রতিনিধি এ.কে.আজাদ। আলাপচারিতায় জানা গেছে, অধিক গুণে গুনান্বিত ত্যাগী এই নেতা দাীর্ঘ- বছর যাবৎ বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আদর্শিত হয়ে একনিষ্ঠভাবে আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে রয়েছেন। ছাত্র জীবনে তিনি চৌমুহনী কলেজে ছাত্রলীগের ভিপি ছিলেন। এরপর লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজে মোহকুমালীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করার পাশাপাশি বেশ ক’টি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি লক্ষ্মীপুর জেলা বাস-মিনি বাস মালিক সমিতি, ঢাকা-রায়পুর বাস মালিক সমিতি দালালবাজার এন.কে উচ্চ বিদ্যালয় ও কামানখোলা উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে তিনি তিনবার ৩নং দালালবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। পারিবারিক জীবনে তিনি ০৫ সন্তানের জনক বলে জানা যায়। রাজনৈতিক জীবনে অক্লান্ত পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে তার হৃদয় নিংড়ানো ঘামের উৎসর্গে যেমন ঃ দলকে সু-সংগঠিত করেছেন, তেমনি পারিবারিক জীবনে প্রত্যেক সন্তানকে সু-শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলেছেন। মহতী এই ত্যাগী নেতার সামাজিক অবস্থান ও সর্বজন স্বীকৃত। তার ০৫ সন্তান কে কোন অবস্থানে রয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার বড় ছেলে মোঃ আরিফুন নবী চৌধুরী রাসেল একজন আইনজীবী, মেজো ছেলে শরীফুন নবী ফয়সেল ঢাকা প্রাইম ব্যাংকে কর্মরত, সেজো ছেলে চৌধুরী মাহমুদুল নবী সোহেল লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি, চতুর্থ নম্বর ছেলে কামরুন নবী চোধুরী জুয়েল লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এবং ছোট মেয়ে তাহমিনা আক্তার পিনু- যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। একান্ত আলাপচারিতায় তিনি আরো জানান, ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন ও সার্বভৌমত্ব এই দেশটিতে মাথা উচুঁ করে বেঁচে থাকার যে স্বপ্ন পূরণ করতে পেরেছি, তার সকল অবদানই ছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের। আর তারই কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে নিজেকে নিয়োজিত রাখার চেষ্টায় নিয়োজিত রয়েছি। বাকী জীবনে ও তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আদর্শিত হয়ে গোটা পরিবারকে সাথে নিয়ে আওয়ামী রাজনীতির সংঙ্গে থাকার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

স/ এষ্

print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন