৬৫ বছর বয়সে বিয়ে করলেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু। তার স্ত্রী দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ভাগ্নি টুম্পা।

২১ এপ্রিল শুক্রবার সকালে এরশাদের গুলশানের প্রেসিডেনশিয়াল প্যালেসে ৩০ লাখ টাকা দেনমোহরে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। বিয়েতে স্ত্রীকে প্রায় কোটি টাকা মূল্যের একটি বিলাসবহুল গাড়ি উপহার দিয়েছেন বাবলু।

রাতে ঢাকার একটি বিলাসবহুল রেস্টুরেন্টে হবে বিয়ের রিসেপশন। সেখানে প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও এরশাদের ঘনিষ্ঠ এবং বিশ্বস্তজনদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

বিয়ের আনুষ্ঠানিকতায় এরশাদ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, এরশাদের বোন, বাবলুর শাশুড়ি মেরিনা ইয়াসমিন এমপি, জিয়াউদ্দি বাবলুর ছেলে ও ছেলের বউ, জিএম কাদের, জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদারসহ অন্যান্য আত্মীয় ও পারিবারিক সদস্যরা।

এরশাদের বাসায় বিয়ের অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয় খুব অল্প সময়ে। কাবিনের অনুষ্ঠান শেষে বর-কনের জন্য দোয়া করেন সবাই। কাবিন অনুষ্ঠানে এরশাদের স্ত্রী এবং বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ যাননি।

জিয়াউদ্দিন বাবলু দশম জাতীয় সংসদে জাপার দলীয় সংসদ সদস্য। তার শাশুড়ি মেরিনা ইয়াসমিন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য। মামা শ্বশুর এরশাদও এ সংসদের সদস্য। আর মামি শাশুড়ি রওশন এরশাদ জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা।

২০০৫ সালে জিয়াউদ্দিন বাবলুর স্ত্রী ফরিদা সরকার ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। ফরিদা নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন। বাবলুর স্ত্রী মেহেজেবুননেছা রহমান টুম্পাও অধ্যাপক। তিনি সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটির বিবিএর প্রোগ্রাম ডিরেক্টর। প্রথম সংসারে তার এক মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে।

স্ত্রী ফরিদা সরকারের মৃত্যুর পর একমাত্র ছেলে আশিক আহমেদকে নিয়ে আছেন জিয়াউদ্দিন বাবলু। ছেলে এমবিএ শেষ করে ব্যবসা করছেন। তিনিও বিয়ে করেছেন।

স/ এষ্

print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন

Power by

Download Free AZ | Free Wordpress Themes