হারুন-অর-রশীদ,ফরিদপুর প্রতিনিধি:

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার রুপাপাত ইউনিয়নের মোড়াগ্রামে তুচ্ছ ঘটনায় গত তিনদিন ধরে দফায় দফায় সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০জন আহত হয়েছে। আহতদের আলফাডাঙ্গা ও মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ রোববার বোয়ালমারী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এলাকাবাসী ও থানা সুত্রে জানা যায়, গত ২৬ মার্চ কাটাগড় মেলা থেকে বাড়ি যাওয়া নিয়ে মোড়াগ্রামের বাবলু মোল্যা গ্রুপের ভ্যান চালক তোতা মোল্যার সাথে ওই গ্রামের কাশেম মোল্যার জামাই কামরুলের সাথে কথা কাটাকাটি হলে ভ্যানচালককে কামরুল ও তার শুশুর মারধর করে। এ সময় তারা ভ্যান চালকের কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়। পর দিন স্থানীয় মাতুব্বররা শালিসে বসে ওই মোবাইল ও টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে ঘটনা মিমাংসা করে দেয়। টাকা ফেরত না দিয়ে কাশেম বিভিন্ন তালবাহনা করে।

গত বৃহস্পতিবার (১৩ এপ্রিল) রাতে তোতা ওই টাকা ও মোবাইল ফেরত চাইলে তাকে মারধর করে আহত করা হয়। এ সময় খবর পেয়ে বাবলু গ্রুপের লোকজন এগিয়ে আসলে কাশেম গ্রুপ ও বাবলু গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে শুক্র ও শনিবার দফায় দফায় বাবলু গ্রুপ ও কাশেম গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ চলতে থাকে। খবর পেয়ে ডহরনগর ফাঁড়ি পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এর মধ্যে রোববার দুপুরে বাবলু গ্রুপের ঠান্ডু মোল্যাকে মোড়া চৌরাস্তায় মারধর করে প্রতিপক্ষের মিজানসহ ১০/১২জন।

বোয়ালমারী থানার এসআই মো. শহিদুল ইসলাম জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। দুই পক্ষের লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

স/জনী

print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন

Power by

Download Free AZ | Free Wordpress Themes