হাফিজুর রহমান হৃদয়, নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে টারকি মুরগি পালন করে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছে খামারি ইদ্্িরস আলী। পৌরসভার কামারপাড়া এলাকার কৃষক ইদ্রিস আলী দীর্ঘদিন থেকে কৃষি কাজের পাশাপাশি ব্রয়লার মুরগির খামার করে আসছিলেন। এ খামার করে তিনি আর্থিক লাভবান হলেও শখের বশিভূত হয়ে এবারে নাগেশ্বরীতে একমাত্র প্রথম খামারি হিসেবে টারকি মুরগির খামার গড়ে তোলে। গত ৮ মাস আগে খামারি ইদ্রিস আলীর ছোট ভাই ঢাকায় অবস্থানরত ইউনুছ আলীর পরামর্শে নিজের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে বেশি লাভের আশায় টারকি মুরগির খামার গড়ে তোলে। বর্তমান তার খামারে ছোট-বড় ও মাঝারিসহ ৪ শতাধিক টারকি মুরগি রয়েছে। মুরগির তুলনায় মোরগরা অনেক বড়। প্রতিদিন সৌখিন মানুষগুলো তার টারকি মুরগি দেখার জন্য বিভিন্ন দূর দূরান্ত থেকে তার বাড়িতে এসে ভিড় জমাচ্ছে। খামারি ইদ্রিস আলী জানায়, বর্তমান তার খামারের অধিকাংশ মুরগি ডিম দিচ্ছে। ব্রয়লার মুরগির চেয়ে টারিকি মুরগি পালনে অনেক লাভবান হওয়া যায়। একটি টারকি মুরগির দাম ১ হাজার থেকে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি করা হয়। তাছাড়াও তিনি ডিম থেকে বাচ্চা ফুটানোর মেশিনও সংরক্ষণ করেছে। তিনি আরও জানান মুরগির রোগ প্রতিরোধের জন্য উপজেলা প্রাণিস¤পদ কর্মকর্তা কর্মচারিদের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছে। তারা আমাকে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করছে। ঘাস, লতাপাতা খেয়ে টারকি মুরগিরা জীবন-ধারণ করায় টারকি মুরগির খাদ্যে খরচ অনেক কম। উপজেলা প্রাণি স¤পদ কর্মকর্তা ডা. এমএ কাদের বলেন, টারকি মুরগির খামার একটি লাভজনক ব্যবসা এ খামার করে যুবকরা তাদের আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ করে নিতে পারে।

স/জনী

print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন