ডাম্বুলায় প্রথম ওভারের তৃতীয় বলেই শ্রীলঙ্কা শিবিরে আঘাত হেনেছেন টাইগার স্কিপার মাশরাফি বিন মর্তুজা। ওপেনার গুনাতিলকাকে শূন্য রানে সাজঘরে ফিরিয়েছেন মাশরাফি। আর প্রথম ওভারটাও নিয়েছেন মেডেন।

এর আগে ডাম্বুলায় স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে ৩২৫ রানের টার্গেট দিয়েছে সফরকারী বাংলাদেশ। ওপেনার তামিম ইকবাল, অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ও হার্ডহিটার সাব্বির রহমানের ব্যাটিং দৃঢ়তায় এ বিশাল রান সংগ্রহ করে মাশরাফি বাহিনী।

 টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান লঙ্কান অধিনায়ক উপল থারাঙ্গা। ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ২৯ রানে ওপেনার সৌম্যের উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ব্যক্তিগত ১০ রানে সাজঘরে ফিরেন সৌম্য। এর পর তামিমের সঙ্গে ৯০ রানের জুটি গড়েন সাব্বির হাসান। দলীয় ১১৯ রানে দ্বিতীয় উইকেটের পতন ঘটে সফরকারীদের। লঙ্কান অধিনায়ক উপল থারাঙ্গার অসাধারণ এক ক্যাচে হাফ সেঞ্চুরির পর ফিরে যান সাব্বির। তবে এর আগে মাত্র ৫৬ বল খেলে ৫৪ রান করেন সাব্বির। যেখানে ৪০ রানই এসেছে বাউন্ডারি থেকে। সাব্বিরের আউটের পরে আরো একটি ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম ফিরে যান মাত্র এক রান করে।

মুশফিকের ফিরে গেলে সাকিবকে নিয়ে দলের হাল ধরেন তামিম। দুজনে মিলে করেন ১৪৪ রানের অসাধারণ এক জুটি। তামিম তুলে নেন ক্যারিয়ারে ৮ম শতক। আর সাকিব দেখা পান ৩৩তম হাফ সেঞ্চুরির। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১২৭ রান করেন তামিম। আর সাকিবের ব্যাট থেকে আসে ৭২ রান।

শেষ দিকে মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ ও মোসাদ্দেক হোসেনের ঝড়ো ইনিংসে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩২৪ রান সংগ্রহ করে টাইগার বাহিনী। এক ছক্কা ও ৩ চারে ৯ বলে অপরাজিত ২৪ রান করেন মোসাদ্দেক। আর ৭ বলে ১ ছক্কায় ১৩ রান সংগ্রহ করেন রিয়াদ।

শ্রীলংকার হয়ে সর্বোচ্চ দুই উইকেট পান সুরাঙ্গা লাকমল। আর লাহিরু কুমারা, সাদকান ও দাস গুনারত্নে নেন একটি করে উইকেট।

স/নিপা

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন