গরীব রিকশাওয়ালার টাকা মেরে দিল যুবক!

নিউজ ডেস্ক: রাত তখন সাড়ে ১১টা। রাজধানীর মোহাম্মদপুরের টাউনহলে রাস্তার ওপর রিকশা নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন একজন রিকশাচালক। চোখে-মুখে ছিল তার বিষন্নতার ছাপ। তার দিকে এগিয়ে গেলেন এ প্রতিবেদক। জানতে চাইলেন, কিছু হয়েছে কি না।

এরপর ওই রিকশাচালক জানালেন, নাম তার মোঃ নজরুল। একজন যাত্রীর অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছেন। যাকে নুরজাহান রোড থেকে রিকশায় করে এখানে এনেছিলেন তিনি।

নজরুল বলেন, এখানে নামিয়ে দেয়ার পর ভাড়া চাইলে ওই যাত্রী ১ হাজার টাকার একটি নোট দেখিয়ে ভাংতি নেই বলেন। টাকা ভাংতির কথা বলে আমার থেকে ৫০০ টাকা নেন। একটি দোকানে ভাংতি না পেয়ে পাশের একটি গলিতে ঢুকে যান। এখানে আমি এক ঘন্টা দাঁড়িয়ে আছি। কিন্তু তিনি এখনও ফিরে আসেননি। অপরিচিত ওই যাত্রী ২৫-২৬ বছরের যুবক ছিল বলে জানান নজরুল। তার গায়ে টি-শার্ট পড়া ছিল।

নজরুল বলেন, আমার দেশের বাড়ি রংপুর। সেখানে আমার মা, স্ত্রী ও দুই মেয়ে আছে। একটা মেয়ে কলেজে পড়ে আর অপর মেয়ে পড়ে স্থানীয় একটি হাইস্কুলে। আমি অনেক কষ্ট করে সংসার চালাই।

তিনি বলেন, ঢাকায় থাকি শেখেরটেকে। সকাল ৯টায় বের হয়ে বিকেলে বাসায় ফিরি। এরপর সন্ধ্যায় আবার বের হই। প্রতিদিন ১০০ টাকা রিকশার ভাড়া দেয়া লাগে। আজকে সেই টাকাও দিতে পারবো না।

এরপর অনেকটা ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি বলেন, আমি গরিব মানুষ। মাথার ঘাম পায়ে ফেলে রিকশা চালাই। আমার এত কষ্টের টাকা কিভাবে মানুষ মেরে দেয়?

এরপর, আজকে আর রিকশাই চালাবো না-এই বাক্য বলে ভারাক্রান্ত মন নিয়ে টাউনহল থেকে রাত ১২ টায় রিকশা নিয়ে চলে যান নজরুল।

স/রারা

Print Friendly, PDF & Email