মোবাইল ফোনের সর্বনিম্ন ভয়েস কলরেট আবারও ২৫ পয়সায় নামিয়ে আনার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন। সংগঠনটি বলছে, এ জন্য গণশুনানির আয়োজন ও নতুন করে কস্ট মডেলিংয়ের ব্যবস্থা করার বন্দোবস্ত করতে হবে।

বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মুক্ত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

সংগঠনের সভাপতি মহিউদ্দীন আহমেদ বলেন, আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ ইউনিয়নের (আইইটিইউ) সহায়তায় সর্বপ্রথম ২০১০ সালে বিটিআরসি দেশে ভয়েস কলের সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন রেট বেঁধে দেয়। সেই সময় নিয়ন্ত্রক সংস্থা একটি কস্ট মডেলিংও করেছিল। গত ১৪ আগস্ট হঠাৎ করে বিটিআরসি প্রজ্ঞাপন জারি করে গ্রাহকদের ম্যাসেজের মাধ্যমে জানায় এখন থেকে ভয়েস কলরেটে ‘অননেট’ ‘অফনেট’ থাকছে না। যেখানে সর্বনিম্ন ৪৫ পয়সা আর সর্বোচ্চ সিলিং রেট ২ টাকা থাকবে।

আর যুক্তি হিসেবে বলা হয় অননেট অফনেট এক হওয়াতে মনোপলি ভাঙা যাবে। যে যুক্তি খুবই হাস্যকর। গ্রাহকদের এখন ২৫ পয়সার জায়গায় ৪৫ পয়সা দিতে হচ্ছে। আর সর্বোচ্চ নেয়া হচ্ছে ২ টাকা। তাহলে কার লাভ হচ্ছে এই নতুন কলরেটে? প্রশ্ন রাখেন তিনি।

সংগঠনের পক্ষ থেকে ৫ দফা দাবির তুলে ধরা হয়। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে-

১। অফ নেট, অন নেট প্রথা বাতিল করে, সরাসরি একক কল লাইন চালু করতে হবে।
২। কলরেট ২৫ পয়সা বা তারও কম করা যায় কিনা তার জন্য গণশুনানি ও নতুন করে কস্ট মডেলিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে।
৩। টেলিযোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে গ্রাহক সুরক্ষা দেয়ার জন্য একটি আলাদা আইন ও কমিশন তৈরি করতে হবে।
৪। কলরেটের ক্ষতিপূরণ গ্রাহককে দ্রুত ফেরৎ দিতে হবে।
৫। নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা আগামী এক মাসের মধ্যে ঠিক করতে হবে।

এসএ

print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন