বদলগাছী (নওগাঁ)সংবাদদাতাঃ নওগাঁর বদলগাছীতে গ্রামের সাধারণ জনগণের সংগে প্রতারনা করে ভোটার আইডির স্মাটকার্ড দেওয়ার নামে গ্রামবাসীর ফিঙ্গার প্রিন্ট ও ভোটার আইডির ফটোকপি নিয়ে পালিয়ে গেছে প্রচারক চক্র।

এ বিষয়ে গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে থানায় জিডি করা হয়েছে। প্রতারক চক্র থেকে জনগনকে সতর্ক করতে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে এলাকায় মাইকিং করা হয়েছে। তথ্য সংগ্রহকালে জানাযায় উপজেলার হাজীপুর গ্রামে গত ২৬ জুন মোটর সাইকেল যোগে ২ ব্যক্তি এসে গ্রামবাসীকে বলেন সরকার থেকে জনগণকে স্মাটকার্ড দেওয়া হবে এর জন্য ফিঙ্গার প্রিন্ট ও ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি লাগবে। এই কথা বলে হাজীপুর গ্রামের ৪ শতাধিক নারী পুরুষের ফিঙ্গার প্রিন্ট ও ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি নেয়।

এই সব নিতে তারা আলাদা ট্যাব ব্যবহার করেছে প্রতারক চক্র। ৩ দিন কাজ করার পর ঐ গ্রামের হাফিজুর রহমান বাবু বিষয়টি বদলগাছী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শফি উদ্দীন শেখকে ফোনে অবগত করলে তিনি ঐ ২ প্রতারককে আটকাতে বলেন এবং সংগে সংগে শফি উদ্দীন নিজেই ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তার আগেই প্রতারক চক্র পালিয়ে যায়। মোশারফ হোসেন, তোজাম্মেল হক, জিয়াউর রহমান, রশিদুল জানায় হাফিজুর রহমান বাবু যখন বিষয়টি নির্বাচন কর্মকর্তাকে অবগত করেছে। ঘটনাস্থলে স্থানীয় লোকজন তখন কেউ ছিলনা। একই ভাবে এই চক্রটি উপজেলার ভরট্ট গ্রাম সহ পার্শ্ববর্তী নওগাঁ সদর উপজেলার কিছু লোকজনের ফিঙ্গার প্রিন্ট ও আইডি কার্ডের ফটোকপি নিয়েছে বলে জানা গেছে। হাজীপুরে যে দুজন কাজ করেছে তারা পরিচয় দিয়েছে একজনের বাড়ী জয়পুরহাট ও আর একজনের বাড়ী কাহালু। এনিয়ে গ্রামবাসীর মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্ভাচন কর্মকর্তা মোঃ শফি উদ্দীন শেখ জানান আমি জানার পর চক্রটিকে আটকাতে বলেছিলাম কিন্তু তারা পালিয়ে যায়। জনগণকে সচেতন করার জন্য এলাকায় মাইকিং করা হয়েছে। বদলগাছী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ জালাল উদ্দীন জানান ইতি মধ্যে খবর পাওয়া যাচ্ছে ভরট্ট এলাকার লোকজনের নামে ঐ চক্রটি মোবাইল সিম উত্তোলন করেছে। যাদের নামে সিম উত্তোলন করেছে তাদের মোবাইলে ম্যাসেস আসছে বলে ঐ এলাকার লোকজনের ভ্যাস পওয়াগেছে এবিষয়ে গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে থানায় জিডি করা হয়েছে এনিয়ে গ্রামবাসী আতংকিত।

আরআর

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন