মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার কামাড়খাড়া বাজারের ২ ব্যাবসায়ী সন্ত্রাসী হামলায় আহত হয়েছে। এ সময় আক্তার বেপারীর দোকানে ভাংচুর এবং তাকে মেরে দাঁত ভেঙ্গে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। পরে পাশের দোকানি স্বপন মিষ্টান্নালয় এর মালিক স্বপন ঘোসকে চর থাপ্পর মেরে আহত করা হয়। এ ঘটনায় কামাড়খাড়া বাজারের ব্যাবসায়ীর ক্ষুদ্ধ হয়ে ওই বাজারের প্রায় ৪ শতাধিক দোকান বন্ধ করে দিয়েছে। এই ঘটনায় ওই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করলে বাজারে পুলিশ মোতায়ান করা হয়। জানাগেছে, ওই বাজারের মালিকানা নিয়ে ১১ মালিকের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। এর জের ধরে মঙ্গলবার বেলা ১২দিকে ওই ১১ মালিকের ১জন পলিন হালদার ও তার ভাতিজা বাবু ওই বাজারের ইফতার সামগ্রী বিক্রেতা আক্তার বেপারীর উপর হামলা চালিয়ে তাকে মেরে দাঁত ভেঙ্গে ফেলে এবং দোকানে ভাংচুর করে। পরে দুপুর ১ টার দিকে পলিনের পক্ষে দিঘিরপাড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আরিফ হাওলাদার স্বপন ঘোসের নির্মাণাধীন মার্কেটের কাজ বন্ধ করে দেয় এবং তাকে চর থাপ্পর মেরে আহত করে । এতে বাজারের ব্যাবসায়ীরা ক্ষুদ্ধ হয়ে দোকানপাট বন্ধ করে দেয়। দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাজারের সকল দোকানপাট বন্ধ থাকায় সাধারন মানুষ ভোগান্তিতে পড়ে।

কামাড়খাড়া বাজার কমিটির সভাপতি আনিছ হাওলাদার জানান, কয়েকদিন পরপরই হামলাকারীরা আমাদের নিকট চাঁদাদাবি করে চাঁদা না দিলেই দোকানে এসে দোকানদারদের মারধর করে।

এ ব্যাপারে দিঘিরপাড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আরিফ হাওলাদার বলেন, আমি ওই বাজারের বিবাদমান দোকানদারদের মার্কেট নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখতে বলছি কাউকে মারধর করি নাই।

দিঘিরপাড় তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম জানান, দোকান মালিকানা বন্টন নিয়ে মালিকদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে। এর অংশ হিসাবে ভূল বোঝাবুঝির কারনে একটু বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়েছে।

স/রহ

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন