আবু নাসের হুসাইন, সালথা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি:

ফরিদপুর প্রেসক্লাবের চারবারের নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক, ফরিদপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক, ‘এনটিভি ও ‘আমারদেশ পত্রিকার সাবেক ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি এবং জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘আমার ফরিদপুর’ এর সম্পাদক আরিফ ইসলাম শুক্রবার রাতে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিলল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৪৮ বছর। তিনি স্ত্রী ও এক মেয়েসহ অনেক গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

আজ শনিবার বিকাল ৪ টায় ঢাকা থেকে আরিফের মৃতদেহ ফরিদপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে। ফরিদপুর পৌছে গোয়ালচামট খোদাবক্স রোড এর বাড়িতে আরিফের মরদেহ কিছুক্ষনের জন্য রাখা হবে । তারপর রাত ১০ টার দিকে ফরিদপুর ডায়বেটিক হাসপাতালের হিমাগারে রাখা হবে তাকে। রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় ফরিদপুর প্রেসক্লাবে নিয়ে আসা হবে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনের জন্য। বাদ জহুর গোয়ালচামট খোদাবক্স রোডস্থ আরিফ ইসলামের বাড়ি সংলগ্ন জামে মসজিদে জানাযা শেষে তাকে আলিপুরে দাফন করা হবে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, ২০১২ সালের মাঝামাঝিতে আরিফ ফরিদপুর ছেড়ে ঢাকা অভিবাসী হন। স্ত্রী ও মেয়েকে নিয়ে ঢাকার বনশ্রীতে একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন তিনি। পারিবারীক সূত্র জানায়, শুক্রবার রাত ১১টার দিকে স্ত্রীর সাথে শেষ কথা হয় তার। এরপর গভীর রাত পর্যন্ত তিনি কম্পিউটারের কাজ শেষে ঘুমাতে যান। সকালে তাকে ডাকাডাকির পরেও আর জেগে উঠেননি তিনি। পরে বাড়িতে ডাক্টার ডেকে আনা হলে ডাক্টার তাকে মৃত বলে ঘোষনা করেন । গভীর রাতে ঘুমের মধ্যে তিনি ষ্ট্রোক করে মারা গেছেন বলে ডাক্টারগন ধারণা করছেন।
আরিফ ইসলাম ফরিদপুর শহরের গোয়ালচামট খোদা বক্স রোডের মরহুম আব্দুস সালামের পুত্র। ২ বোন ২ ভাই ও বৃদ্ধ মা রয়েছে তার।
ফরিদপুরের তরুণ প্রজন্মের সাংবাদিক হিসেবে আরিফ ইসলাম ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। আরিফের মৃত্যুতে ফরিদপুরের সাংবাদিক মহল ছাড়াও পরিচিতমহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

তার মৃত্যুতে জাতীয় সংসদের মাননীয় সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী এমপি ও তার কনিষ্টপুত্র শাহদাব আকবার চৌধুরী লাবু গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন বলে সংসদ উপনেতার সহকারী একান্ত সচিব মো. শফি উদ্দীন সাংবাদিকদের জানান।ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ ইমতিয়াজ হাসান রুবেল সহ ফরিদপুরে কর্মরত সকল সাংবাদিক আরিফ ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এছাড়াও সালথা প্রেসক্লাব, নগরকান্দা প্রেসক্লাব ও উপজেলা প্রেসক্লাব, সালথা উপজেলা আওয়ামী লীগ, নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন দলের নেতাকর্মী ও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ সাংবাদিক ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন।

জানা যায়, আশির দশকের শেষের দিকে ফরিদপুরের স্থানীয় দৈনিক ‘ঠিকানা’ পত্রিকা দিয়ে তিনি সাংবাদিকতা শুরু করেন। এরপর নব্বইয়ের দশকে দীর্ঘদিন তিনি দৈনিক ‘আজকের প্রত্যাশা’ পত্রিকার ফরিদপুর প্রতিনিধি হয়ে কাজ করেছেন। ২০১২ সালে আরিফ ইসলাম ফরিদপুর ছেড়ে ঢাকায় যান। এরপর ‘আমার ফরিদপুর’ নামে একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের সম্পাদনার দ্বায়িত্ব পালন করছিলেন। সাংবাদিকতার পাশাপাশি তিনি কবিতাও লিখতেন।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন