রাহুল রাজ
বাংলাদেশের বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা ক্রিকেট। পাড়ার গলি থেকে পার্ক বা খেলার মাঠ সর্বত্রই চলছে ব্যাট বলের লড়াই। শুক্রবার ছুটির দিনে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের চারপাশে মেতে ওঠে নানান বয়সের ক্রিকেট খেলোয়াড়েরা। স্টেডিয়াম এলাকার রাস্তা থেকে শুরু করে ফাঁকা স্থান দখল করে মেতে ওঠে ক্রিকেট উদ্দীপনায়। সরেজমিনে দেখা যায়, কেউ বাহারি ভঙ্গিতে বোলিং করছে আবার কেউ স্বজরে ব্যাট চালিয়ে বল পাঠিয়ে দিচ্ছে সীমানার বাইরে।

মুহুর মুহুর করতালিতে উৎসুক পথিকেরাও নিজেদের যুক্ত করছে দর্শকের তালিকায়। ছোট সীমানার এই ক্রিকেট খেলায় আছে বেশ কিছু নিয়মের পরিবর্তন। যেখানে চার-ছয়ের ফুলঝুরি দেখার জন্য মাঠে দর্শক ভির করে, সেখানে এই ক্রিকেটে ছয় হাঁকালে ব্যাটসম্যানকে ফিরতে হয় সাজ ঘরে। গতি হিসাবে ব্রেটলী ও সোয়েব আক্তার যখন গতিবোলারদের আইকন তখন এই ক্রিকেটে একটু জোরে বল হলে তা হয়ে যায় ‘নো’ বল।

সোহেল নামের এক ক্রিকেটারের সাথে কথা বলে জানা যায়, মূলত জায়গা ছোট হবার জন্যই এখানে ছয় মারা নিষেধ। তাছাড়া ছয় থাকলে আসে পাশের মানুষকে অসুবিধায় পড়তে হয়। তাই এই ছোট ক্রিকেটে ছয় মারলে তাকে আউট ঘোষণা করা হয়। মূলত আমরা সবাই বিভিন্ন কাজের সাথে জড়িত। শুক্রবার মার্কেট বন্ধ থাকে, সেই সুযোগে আমরা মেতে উঠি ক্রিকেট নিয়ে।

এদিকে মনোবিজ্ঞানী, মসেদ জোয়ারদার বলেন, শরীর এবং মনকে ভাল রাখতে খেলাধুলার কোন বিকল্প নেই। বর্তমান সময়ে মাদক থেকে তরুন সমাজকে দূরে রাখতে তাদের খেলাধুলার প্রতি আরো বেশি আগ্রহী করে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে হবে।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন