মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি : টঙ্গীবাড়ী উপজেলার বেসনাল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করে টিন ও কাঠ দিয়ে বাউন্ডারী নির্মাণ করছে দূর্বত্তরা। দির্ঘদিন যাবৎ কামাড়খাড়া গ্রামের সেরাজল ঢালীর ছেলে কবির ঢালী ওই মাঠ দখলের পায়তারা করে আসছিলো। এর আগেও সে ওই স্থানে টিন ও কাঠ দিয়ে একটি ঘর নির্মাণ করে।

পরে এ নিয়ে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর সে তার নির্মিত ঘরটি ভেঙ্গে নিয়ে গেলেও গতকাল শুক্রবার সকালে বন্ধের দিনে সে ওই স্কুলের মাঠটির প্রায় ৫ শতাংশ জমিতে বাউন্ডারী নির্মাণ করেছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ওই স্কুলের মাঠের দক্ষিন অংশে সিমেন্টের তৈরী পাকা খাম পুতে টিন ও কাঠ দিয়ে বাউন্ডারী নির্মাণ করা হয়েছে।

স্থাণীয়রা জানান, সকাল ৭টার দিকে স্কুল বন্ধ থাকা অবস্থায় কবির ঢালী, মান্নান দেওয়ান, হাকিম দেওয়ানসহ ওই এলাকার কতিপয় সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক স্কুল মাঠে বাউন্ডারী নির্মান করে। স্কুলের প্রধান শিক্ষক কৃষ্ণ কমল দাশ জানান, বিদ্যালয়টি ১৯২৮ সালে স্থাপিত হওয়ার পর ১৯৭৬ সালে স্থাণীয় মীর মোশাররফ হোসেন এবং নুর মোহাম্মদ মাষ্টার ওই স্কুলের ৪৭ শতাংশ জমির মধ্যে দখলীয় দাগের ১৪ শতাংশ জমি দান করে। এর পর হতেই স্কুল ওই জমিটি ভোগ দখল করে আসছে।

সম্প্রতি কবির হোসেন ওই জমিটি নিজ জমি দাবী করে দখলের পায়তারা করে আসছিলো। সে স্কুল খোলার সময় দখল করতে না পেরে বন্ধের দিনে স্কুল মাঠ হিসাবে ব্যাবহিত জমিটিতে টিন কাঠ দিয়ে বাউন্ডারী নির্মাণ করে। এ ব্যাপারে জমি দখলকারী কবির হোসেন জানান, এই জমি আমি মুক্তিযোদ্ধা মান্নান বেপারীর কাছ হতে ক্রয় করেছি। আমি আমার জমিতে বাউন্ডারী নির্মাণ করছি। ওই স্কুল কমিটির সভাপতি স্থাণীয় কামারখাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন হালদার জানান, আমি কবিরকে মাঠের মধ্যে বাউন্ডারী নির্মাণ করতে নিষেধ করছি কিন্তু সে আমার কথা শুনেনি।

এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসিনা আক্তার জানান, খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। স্থাণীয় চেয়ারম্যান এর মাধ্যমে কাজ বন্ধ করতে এবং দখলকারী ও স্কুল পক্ষকে রবিবার কাগজপত্র নিয়ে আসতে বলেছি।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন