সিএনসির ভাষা দিবস আলোচনা
বাংলা ভাষাকে ধর্ম শিক্ষার সাধারণ
বাহন করতে হবে।

পদক পেলেন সাজজাদ, আসাদ, বাসির ও নূর কামরুল

বাংলাভাষা রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা পেয়েছে ৬৪ বছর আগে। দেশ স্বাধীনেরও ১৭ বছর পূর্বে। কিন্তু এখনও সে রাষ্ট্রভাষা মাতৃভাষার মর্যাদা পায়নি। বাংলাদেশের অধিকাংশ অশিক্ষিত মানুষ আরবি পড়তে বা কুরআন তেলাওয়াত করতে জানলেও বাংলা পড়তে বা মাতৃভাষার মাধ্যমে ধর্মের বানীতে বুঝতে পারে না। তারা আরবি খুতবা বা কুরআন-হাদিসের বাংলা অর্থ এমনকি নামাজে ব্যবহৃত আরবি শব্দাবলীর অর্থ জানেনা। মাতৃভাষার সম্মান ও মর্যাদা উচ্চকিত করতে হলে সাধারন ভাবে বাংলাভাষার চর্চা বাড়াতে হবে। বিশেষ করে ইবাদতসহ দৈনন্দিন জীবনের সকল কাজে বাংলা ভাষার ব্যবহার সুনিশ্চিত করতে হবে।
এসব শব্দমালা উচ্চারিত হয় গত সোমবর ২৬ শে ফেব্রুয়ারী বিকালে নজরুল একাডেমীতে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন উপলক্ষে। আয়োজনে ছিলো সেন্টার ফর ন্যাশনাল কালচার (সিএনসি) । সাবেক সচিব খান এম. ইব্রাহিক হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন দৈনিক নয়া দিগন্ত সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন ছাড়াকার ও প্রবীণ সাংবাদিক সাজজাদ হোসাইন খান, কবি আসাদ বিন হাফিজ, সাংবাদিক আহমদ বাসির।

আলোচনা ও কবিতাপাঠে অংশ গ্রহণ করেন কবি আতিক হেলাল, ইব্রাহিম বাহারী, জেসমিন রুমি, কবি সাঈদ জোবায়ের ও নূরুল ইসলাম খান মামুন। সংগীত পর্বে অংশ গ্রহন করেন কন্ঠ শিল্পী হাসিনুর রব মানু ও লিটন হাফিজ চৌধুরী। স্বাগত ভাষন দেন সিএনসি’র নির্বাহী পরিচালক মাহবুবুল হক।

অনুষ্ঠানের বিশেষ পর্বে ‘‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সিএনসি পদক- ২০১৮’’ প্রদান করা হয় কবি ও ছড়াকার সাজজাদ হোসাইন খানকে, কবি গালিব সিএনসি পদক-২০১৮’’ প্রদান করা হয় কবি আসাদ বিন হাফিজকে, নাজির আহমদ সিএনসি পদক-২০১৮’’ প্রদান করা হয় সাংবাদিক আহমদ বাসিরকে এবং ‘‘বেনজীর আহমদ সিএনসি পদক-২০১৮’’ প্রদান করা হয়। কথাসাহিত্যিক ও ঔপন্যাসিক নূর কামরুল নাহারকে।
অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন নূরুল ইসলাম খান মামুন।

স/মা

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন