জাতিসংঘে বাংলার দাবিতে ইবিতে পদযাত্রা, ভোট দিলেন বিদেশিরাও
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা বাংলার দাবিতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পদযাত্রা ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বহুজাতিক শিল্প প্রতিষ্ঠান প্রাণ গ্রুপের সহযোগিতায় ও জাগো নিউজ২৪.কমের আয়োজনে বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবন থেকে শহীদ মিনার অভিমুখে পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। পরে শহীদ মিনারে সংখিপ্ত সমাবেশ ও অনলাইনে ভোটিং কার্যক্রমের উদ্ধোধন করা হয়। জাতিসংঘে সপ্তম দাপ্তরিক ভাষা বাংলার দাবিতে বিদেশি শিক্ষার্থীরাও ভোট প্রদাণ করেছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সেলিম তোহার নেতৃত্বে পদযাত্রাটি প্রশাসন ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শহীদ মিনারে গিয়ে সংখিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়। জাগো নিউজের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি ফেরদাউসুর রহমান সোহাগের সঞ্চালনায় আবৃত্তি আবৃত্তি সংগঠনের সদস্য রিফার একুশের ককিতা আবৃত্তির মধ্য দিয়ে শুরু হয় সমাবেশ। পরে ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। পরে সমাবেশে সংখিপ্ত বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সেলিম তোহা। পরে তিনি জাতিসংঘে বাংলার দাবিতে জনমত গঠনে অনলাইন ভোটিং কার্যক্রমের উদ্ধোধন করেন। এসময় জাতিসংঘে বাংলাকে দাপ্তরিক ভাষা করার দাবিতে অনলাইনে ভোট প্রদাণ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সোমালিয়ান শিক্ষার্থী ইব্রাহিম এবং হামজা।
এসময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ, প্রক্টর অধ্যাপক মাহবুবর রহমান, প্রগতিশীল শিক্ষক সংগঠন শাপলা ফোরামের নেতা অধ্যাপক মামুনুর রহমান, অধ্যাপক মেহের আলী, অধ্যাপক শাহাদাত হোসেন আজাদ, বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক বাকী বিল্লাহ বিকুল, পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও সহকারী প্রক্টর সাজ্জাদ হোসাইন, আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাজ্জাদুর রহমান টিটু, প্রধান প্রকৌশলী আলিমুজ্জামান টুটুল প্রমূখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিম, ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম পলাশ, ছাত্রমৈত্রীর বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক মোর্শেদ হাবিব, যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুর রউফ, বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসাইন রুদ্র, সাধারণ সম্পাদক আসিফ খান, বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল ফারুক প্রমূখ।
সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সেলিম তোহা বলেন,‘আমি প্রথমে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি জাগো নিউজ২৪.কমকে যে তারা এত সুন্দর, সাবলীল ও খুবই পরিশীলিত কর্মসূচীর মাধ্যমে জাতিসংঘে বাংলাকে দাপ্তরিক ভাষা করার দাবি জানিয়েছে। আমি ইতোমধ্যে বিষয়টি নিয়ে আমার সহকর্মীদের সাথে কথা বলেছি তারা সকলে জাগো নিউজের এ উদ্যোগের প্রশংসা করেছে। আমি জাগো নিউজের আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমি জাতিসংঘের মহাসচিবসহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে দাবি জানাচ্ছি বাংলাকে জাতিসংঘের সপ্তম দাপ্তরিক ভাষা করা হোক। দাবির পক্ষে যুক্তি হলো- একমাত্র বাংলা ভাষারই রয়েছে রক্তাক্ত ইতিহাস। আর এ কারনেই ১৯৫২ সালের ঐতিহাসিক দিনটিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দওেয়া হয়েছে। জাতিসংঘ বাংলাকে তাদের অফিসিয়াল ল্যাঙ্গুয়েজ করলে পৃথিবীর সকল ভাষার প্রতি সম্মান জানানো হবে।’
স/মা
print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন