নিজস্ব প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের গফরগাঁও এলাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ কুখ্যাত আদম ব্যাপারী ও মানব পাচারকারী ফারুক সিন্ডিকেট ব্যাপক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। গত বেশ কিছুদিন যাবৎ সে গফরগাঁও-এ বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে বেকার ও নিরীহ যুবকদের কাছ থেকে মধ্য প্রাচ্য সহ অন্যান্য দেশে তাদের পাঠনোর নাম করে মোটা অংকের টাকা বেআইনী ভাবে হাতিয়ে নিচ্ছে।

এ প্রতারক ফারুক (৪৭), পিতা-মৃত ফজর আলী, গ্রাম-ছিপান, গফরগাঁও, ময়মনসিংহ সে গত ২৯/১২/২০১৭ইং তারিখে এলাকার নিরীহ যুবক মোঃ সোহেল, পিতা-মৃত আব্দুস সালাম, গ্রাম-রৌহা, থানা-গফরগাঁও, ও মোঃ বাবুল মিয়া, পিতা-আব্দুল কাদির, গ্রাম-চর মছলন্দ, থানা-গফরগাঁও এর কাছ থেকে সর্বমোট সোয়া নয় লাক টাকা হাতিয়ে নিয়ে তাদের এয়ার এরাবিয়ার টিকেট করে সৌদি আরবের আল-গাছিম বিমান্দরে পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু কাগজ পত্র ঠিক ছিলনা বলে তাদের বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ পূনরায় বাংলাদেশে ফেরত পাঠায়। বর্তমানে এই যুবক ক্যাশ টাকা হারিয়ে পুলিশ কর্তৃপক্ষের কাছে ধর্ণা দিচ্ছেন।
প্রতারক ফারুক সিন্ডিকেট ইতো মধ্যে এলাকার বিভিন্ন বেকার যুবকদের কাছ থেকে বিদেশ পাঠানোর নামে অর্ধ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি ফৌজাদারী অপরাধ বলে ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য গফরগাঁও থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন। অভিযোগের আইও এসআই আহসান এখনো আসামীর বাড়ী পর্যন্ত পৌছতে পারেননি।

ক্ষতিগ্রস্থ যুবকরা ইতোমধ্যে বিষয়টি বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন পরিষদকে অবহিত করেছেন। এ মানবাধিকার সংস্থা মহাসচিব বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্টের এ্যাডভোকেট মোঃ আনোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের বলেন বিষয়টি ফৌজদারী অপরাধ। এ কারণে পুলিশ, র‌্যাপ ও গোয়েন্ধা সংস্থা তৎপর হলে দুবৃর্ত্ত দমন হতে বাধ্য।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন