মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের উপদ্রেষ্টা বিশিষ্ট স্বর্ণ চোরাকারবারী এক সময়ের ডাবল হত্যা মামলার আসামী গোলাম কবির লাবু শিকদারের ছেলে কনু শিকদার বাল্য বিবাহ দিতে গিয়ে নিজেই ফেসে গেছেন। জানাগেছে গত ৪ ফেব্রুয়ারী উপজেলার ভোরন্ডা গ্রামে মো: বাবুল শেখ তার অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়ের মিয়ের বিয়ে দিচ্ছিলেন। এর আগে ৩ই ফেব্রুয়ারী ওই বিয়ের আয়োজন চললে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দিয়ে আসেন। কিস্তু ওই আওয়ামীলীগ নেতার ছেলে কনু শিকদার পুলিশকে ম্যানেজ করার কথা বলে বাবুল শেখের নিকট হতে ৫ হাজার টাকা উৎকোচ খেয়ে চলে আসেন। পরে ৪ ফেব্রুয়ারী পূর্ণরায় ওই বাড়িতে বিয়ের আয়োজন চললে খবর পেয়ে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি কাবিরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে কনের পিতা বাবুল শেখকে আটক করে নিয়ে আসেন এবং ওই আওয়ামীলীগ নেতার ছেলে কনু শিকদারসহ ৪ জনকে আসামী করে টঙ্গীবাড়ী থানায় মামলা নং ০২ (০২) ১৮ দায়ের করেন।

পরে কনু শিকদার গত ৬ ফেব্রুয়ারী আদালতে আতœসমাপন করে জামিন লাভ করেন। এদিকে কনু শিকদারের বিরুদ্ধে তার বাড়ির সামনে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার শিলিমপুর এলাকায় তালতলা-ডহুরী খাল হতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বাংলাদেশ এ্যাটার্ণী জেনারেলের নামা ভাঙিয়ে বিভিন্ন মামলায় জামিন করে দিবে বলে এলাকাবাসীর কাছ হতে টাকা আদায় করে আসছে।
এ ব্যাপারে কনু শিকদার এর সাথে যোগাযোগ করা হলে সে জানায়, আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। আমি আদালত হতে জামিনে এসেছি। বালু উত্তোলনের বিষয়টি অস্বীকার করে সে।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশের এট্যার্ণী জেনারেল মাহবুবে আলম জানান, এ বিষয়গুলো সম্পর্কে আমার জানা নেই। সত্য মিথ্যা যাচাই করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবো।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন