আবু নাসের হুসাইন, সালথা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি:
ফরিদপুরের সালথায় মায়ের লাশ রেখে পরীক্ষা কেন্দ্রে উপস্থিতি হলেন সুমাইয়া আক্তার নামে এক এস.এস.সি পরীক্ষার্থী। মায়ের মৃত্যুর শোকে চোখে অশ্রু নিয়ে সোমবার উপজেলা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ইংরেজি ১ম পত্র পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেছে। বার বার সে নিজেকে হারিয়ে ফেললেও সহপাঠি ও কেন্দ্র সচিবদের সহযোগিতায় ঐ ছাত্রী পরীক্ষা দিচ্ছেন।
এঘটনায় সালথা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে এক গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ছাত্রীর মায়ের মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পরার পর এক হাতে চোখ মুছতে ও অন্য হাত দিয়ে খাতায় উত্তরপত্র লেখতে দেখা যায়। সংবাদ পেয়ে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষার সভাপতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মাদ মোবাশ্বের হাসান পরীক্ষা কেন্দ্রে ছুটে গিয়ে ঐ শিক্ষার্থীকে শান্তনা দেন। এসময় আবেগ ঘন মুহুর্ত ছড়িয়ে পড়ে ঐ কক্ষে। সুন্দরভাবে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের কথা জানান নির্বাহী কর্মকর্তা।
জানা যায়, এস.এস.সি পরীক্ষার্থী সুমাইয়া আক্তার জেলার সদর উপজেলার কানাইপুর গ্রামের মো. সহিদ মোল্যার মেয়ে। সুমাইয়া সালথা উপজেলার আটঘর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ও পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার সৈকত মল্লিক ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবুল খায়ের সাংবাদিকদের জানান, রবিবার রাতে সন্তান প্রসব করার সময় ঢাকার একটি হাসপাতালে সুমাইয়ার মা মারা যায়। সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সুমাইয়ার মায়ের লাশ বাড়িতে এসে পৌছায়। মায়ের লাশ বাড়িতে রেখেই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন সুমাইয়া। অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহিদুর রহমান খান বলেন, সকাল ১১ টায় সুমাইয়ার মায়ের লাশ দাফন করা হয়েছে।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন