হাফিজুর রহমান হৃদয়, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:
কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ করেছে নিহত গৃহবধূর বাবা সোহরাব উদ্দিন এবং বড় ভাই রফিকুল ইসলাম। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার রায়গঞ্জ ইউনিয়নের পূর্ব সোনাইর খামার এলাকায়। এলাকাবাসী জানায়, ওই এলাকার মর্তুজা মিয়ার ছেলে আনোয়ার হোসেন (৩২) এর সাথে প্রায় ১২ বছর আগে সন্তোষপুর ইউনিয়নের কুটি নাওডাঙ্গা তালেবের হাট, ছিটটারী এলাকার সোহরাব উদ্দিনের মেয়ে সুফিয়া বেগম (২৭) এর ২০হাজার টাকা যৌতুক দিয়ে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই আনোয়ার হোসেন ও তার বাড়ির লোকজন যৌতুকের দাবিতে সুফিয়া বেগমকে বিভিন্নভাবে অত্যাচার ও নির্যাতন করে আসছিলো। গত ১০-১২দিন আগে আনোয়ার হোসেন তার স্ত্রী সুফিয়া বেগমকে বেদম মারপিট করে আহত করে চিকিৎসার জন্য পরীক্ষা নীরিক্ষা করে। পরে দিনদিন অবস্থার অবনতি হলে ১ ফেব্র“য়ারি বৃহ¯পতিবার আসঙ্কাজনক অবস্থায় সুফিয়াকে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রংপুর মেডিকেল হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেয়। রংপুর মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পথিমধ্যেই দুপুরে সুফিয়ার মৃত্যু হয়। বিবাহিত জীবনে তাদের ঘরে সজিব নামের ৭ বছরের একটি ছেলে রয়েছে এবং বর্তমানে নিহত গৃহবধূ গর্ভবতী বলেও জানা গেছে। এ ব্যাপারে নাগেশ্বরী থানার অফিসার ইনচার্য জাকিরুল ইসলাম বলেন, ২ ফেব্র“য়ারি শুক্রবার মৌখিক অভিযোগ পেয়ে বিকেলে লাশের সুরত হাল শেষে ময়না তদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত না হওয়া পর্যন্ত হত্যা নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু নিশ্চিত বলা যাচ্ছে না। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিলো।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন