পিতৃতুল্য চাচার জমি দখলের পাঁয়তারা
সেল্টারদাতা ওয়ার্ড কমিশনার

নিজস্ব প্রতিনিধি : কুমিল্লার পূর্ব লাকসামের নুরে আলম, পিতা-মোকারম মিয়া এলাকায় এখন বহু অপকর্মের হোতা বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন। ভূমি দস্যুতা, যবর দখল, মিথ্যা মামলা দায়ের করে অন্যকে হুমকি প্রদর্শন করাসহ সে মানুষ গুমের ঘটনাও ঘটাচ্ছে বলে গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এ নিয়ে তার বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে। কুমিল্লার বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রে আদালতে তার বিরুদ্ধে বিগত ২৯/১০/২০১৭ইং তারিখে মামলাটি দায়ের করেন এডভোকেট বিকাশ চন্দ্র শাহা। এছাড়া তার বিরুদ্ধে আরোও সাতটি মামলা কুমিল্লার বিভিন্ন আদালতে বিচারাধীন। বর্তমানে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন কোর্টের মামলা নং ৩৫/১৮, ৩২৬/১৬, ৩২৬/০৭, ৯৭১/২০১২, ১১২২/২০১৮ এর তথ্য আমাদের হস্তগত হয়েছে।
কিছুদিন পূর্বে তার অপকর্ম প্রমাণিত হলে, সে আদালতে মুসলিকা দিয়ে আসে যে, সে আর কোন অপরাধ করবে না। কিন্তু চোরে না শোনে ধর্মের কাহিনী। এরপর দ্বিগুন উৎসাহে সে অপরাধ করে চলেছে। এর আগে বিভিন্ন মামলায় সে দীর্ঘদিন জেল হাজতে ছিল। ছাড়া পেয়ে এসে দ্বিগুন উৎসাহে সে অপরাধ চালিয়ে যাচ্ছে। জানাগেছে তাকে সেল্টার দিচ্ছে, জনৈক ওয়ার্ড কমিশনার। এলাকায় তার নাম বলে বেড়াচ্ছে এই অপরাধী।
কিছুদিন আগে শাহ আলম নামে এক ব্যক্তিকে সে গুম করে বিপুল অংকের টাকা মুক্তিপন আদায় করেছিল। বিষয়টি জানা জানি হয়ে গেলে আটোকাবস্থা থেকে গুরুতর আহত ভিকটিম শাহ আলমকে সে ফেলে যায়। এব্যাপারে তার বিরুদ্ধে কুমিল্লা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্টে একটি মামলা বিচারধীন।
আদালতের নির্দেশে এবার তার বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআই। পিবিআই এর একজন কর্মকর্তা বলেন আমরা নিরপেক্ষ ভাবে তদন্ত করছি। তদন্ত শেষ করেই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
নুরে আলমের ব্যাপারে লাকসাম থানার ওসি মাহবুব আলম (০১৭১৩৩৭৩৬৮৯)কে প্রশ্ন করা হলে এই প্রতিবেদককে তিনি বলেন, আমার থানায় মামলা হয়নি, মামলাগুলো আদালতে হয়েছে, বিষয়টি আমি গুরুত্বের সাথে দেখছি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, ডিউটি অফিসার এব্যাপারে ভাল বলতে পারে। নুর আলমের মামলা কোর্টে এন্ট্রি হলে কোর্ট আমাদের জানালে অনুসন্ধানে আরো তথ্য জানা যাবে। লাকসাম থানায় তার বিরুদ্ধে কয়েকটি জিডির কথা উল্লেখ্য করা হলে ওসি বলেন জিডি গুলোর অনুসন্ধান চলছে।
উল্লেখ্য যে, উক্ত নুরে আলম শিশু কালে তার পিতাকে হারালে তার আপন চাচা উত্তর লাকসামের মোস্তফা কামাল (ইউএসএ প্রবাসী) তাকে বুকে পিঠে নিয়ে বড় করেন। নিজ সন্তানের মত লালন পালন করে, আজ প্রবাসী চাচা মোস্তফা কামাল তার আচরণে ক্ষতবিক্ষত।
এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মোস্তফা কামাল এলাকায় একজন দানশীল ব্যক্তি। এলাকার বিভিন্ন উন্নয়নে ও প্রতিষ্ঠানে তার অবদান রয়েছে। বর্তমানে চাচা মোস্তফা কামাল বিদেশে থাকার সুবাদে সে বিভিন্ন জাল কাগজপত্র তৈরী করে চাচার সম্পত্তি আত্মসাৎ করতে চাচ্ছে। চাচা তাকে এ কাজ থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানালে, সে মারমুখী হয়ে উঠছে বলে এলাকাবাসী জানান। কিছুলোক তার অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে যেয়ে জীবনের নিরাপত্তহীনতায় ভুগছেন। তারা অভিযোগ করেন এই সন্ত্রাসী নুরে আলমকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনা না হলে এলাকায় যেকোনো সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন