বাঘারপাড়া (যশোর) সংবাদদাতা

বাঘারপাড়ায় উন্নয়ন মেলার প্রথম দিনে কোন ইউপি চেয়ারম্যান অংশ গ্রহন করেননি। মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কেন অংশ গ্রহন করেননি তারও কোন স্পস্ট ব্যাখ্যা দেননি চেয়ারম্যানবৃন্দ। অধিকাংশই বলেছেন শীতের কারণে অংশ নেননি। মেলার আয়োজক উপজেলা প্রশাসনও বিষয়টির কোন কারণ খুঁজে পাননি।
সারাদেশে প্রতিটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে তিনদিন ব্যাপি উন্নয়ন মেলা চলছে। বর্তমান সরকারের গত নয় বছরের উন্নয়ন সকলের সামনে তুলে ধরাই এ মেলার প্রধান উদ্দেশ্য। সরকার তৃণমূলে যে উন্নয়ন করেন তার অধিকাংশ বাস্তবায়ন হয় ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে। অথচ বাঘারপাড়ার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের কেউই বাঘারপাড়া উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত উন্নয়ন মেলায় উপস্থিত হননি।
একটি সূত্র জানিয়েছে, বাঘারপাড়ার নয়টি ইউনিয়ন পরিষদের আটজন চেয়ারম্যানই সরকার দলীয়। একজন রয়েছেন ওর্য়াকার্স পার্টির। সরকার দলীয় এসব চেয়ারম্যানদের অনেকেই আছেন আওয়ামীলীগের দায়িত্বশীল পদে। তবে নয়জনের ছয়জনই স্থানীয় সংসদ সদস্যের বিপরিত মেরু যশোর জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য নাজমুল ইসলাম কাজলের পক্ষে রাজনীতি করেন। এ কারণে যে অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য থাকেন সে অনুষ্ঠানে এ ছয়জন আসেন না। বাকি তিনজনের একজন সম্প্রতি সংসদ সদস্যর কাছ থেকে সরে আসার প্রক্রিয়ায় আছেন। ধলগ্রাম ও দরাজহাট ইউপি চেয়ারম্যান স্থানীয় সংসদ সদস্যর আস্থাভাজন। যে কারণে তারা দুজন সংসদ সদস্যর সব অনুষ্ঠানে অংশ নেন। তবে গতকাল দেখাগেছে ভিন্ন চিত্র। এ দুই জনের কেউই মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হননি। ধলগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সুবাস দেবনাথ অভিরাম মেলায় অংশ না নেওয়ার বিষয়ে বলেন, ‘শরীর ভালো না। আর শীতের কারণে যেতে পারিনি’। একই সুরে কথা বলেন দরাজহাট ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন বাবলু। তিনি বলেন, মেলায় যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়েছিলাম। কুয়াশার কারণে আবার ফিরে আসি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চেয়ারম্যান জানান, ‘সবাই জানে এমপি যেখানে থাকে আমরা সেখানে উপস্থিত হইনা। এছাড়া প্রশাসনের সাথে চেয়ারম্যানদের ভালো সম্পর্ক যাচ্ছে না। যে কারণে উন্নয়ন মেলায় কেউই অংশ নেননি’। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী বর্মকর্তা শাহনাজ বেগম বলেন,‘ আমি সবাইকে বলেছি, প্রস্তুতি সভার রেজুলেশন সকল চেয়ারম্যানকে দিয়েছি। তারা না আসলে আমি কি করতে পারি’।
বাঘারপাড়া উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত মেলা উদ্বোধনের পর বর্নাঢ্য র‌্যালী বের হয়। এরপর উপজেলা পরিষদ চত্বরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন নির্বাহী অফিসার শাহনাজ বেগম। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রণজিৎ কুমার রায় এমপি। বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান মসিয়ুর রহমান, পৌর মেয়র কামরুজ্জামান, ভাইস চেয়ারম্যান দিলারা জামান প্রমুখ।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন