স্মরণকালের ভয়াবহ তুষারঝড়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কসহ পূর্ব উপকূলীয় অঞ্চল। এখন পর্যন্ত তুষার ঝড়ে নিহত হয়েছে ২২ জন।

জরুরি ছাড়া সব ধরনের ভ্রমণ নিষিদ্ধের পাশাপাশি যানবাহন চলাচলও বন্ধ রাখা হয়েছে নিউ ইয়র্কে। জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে দেশটির ১১ রাজ্যে। খবর- সিবিএস নিউজ।

পাঁচটি অঙ্গরাজ্যে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছেন প্রায় ১৩ হাজার মানুষ। নিউইয়র্ক স্থানীয় সময় শুক্রবার সকালে বাতিল করা হয়েছে প্রায় ১২শ ফ্লাইট। বৃহস্পতিবার বাতিল করা হয়েছে ৪ হাজারের বেশি ফ্লাইট।

সিএনএন-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উইসকনসিনে ৬ জন, টেক্সাসে ৪ জন, নর্থ ক্যারোলিনায় ৩ জন এবং মিশিগান, মিসৌরি ও নর্থ ডাকোতায় একজন করে নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। অন্যান্য অঞ্চলে আরো প্রায় ৬ জন নিহত হয়েছেন।

বিভিন্ন স্থানে মাইনাস ১৫ থেকে মাইনাস ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা পরিলক্ষিত হয়েছে। গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সাউথ ক্যারোলিনা, নর্থ ক্যারোলিনা, উইসকনসিন, মিসৌরি, মিশিগান, নর্থ ডাকোতা, ভার্জিনিয়া, ম্যারিল্যান্ড, পেনসিলভানিয়া, নিউ জার্সি, কানেকটিকাট, ম্যাসাচুসেটস, রোড আইল্যান্ড, নিউ হ্যামশায়ার, ভারমন্ট ও নিউইয়র্কের বিপুল সংখ্যক বাসিন্দা।

এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার দুর্যোগকবলিত এলাকাগুলোতে সরকারি অফিস-আদালত, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা ঘোষণা করা হয়েছে। উপকূলীয় এলাকায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।

যেসব ঝড় খুব দ্রুত শক্তিশালী হয়ে উঠে সেগুলোকে কখনও কখনও ‘বোমা ঝড়’ নামেও অভিহিত করে থাকেন বিজ্ঞানীরা। যুক্তরাষ্ট্রের এ ঝড়টিও খুব দ্রুত শক্তিশালী হয়েছে। তাই স্থানীয়ভাবে একে ‘বোমা সাইক্লোন’ বা ‘বোমা ঝড়’ নামে অভিহিত করা হচ্ছে।

আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফ্লোরিডার টালাসিতে তিন দশকের মধ্যে প্রথমবারের মতো তুষারপাত হতে দেখা গেছে। সেখানে কয়েক মিলিমিটার পর্যন্ত তুষার জমেছে। তবে দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে তুষারপাতের পরিমাণ আরো বেশি। জর্জিয়ার এলাবেলাতেও ১৫ সেন্টিমিটার পুরু তুষার জমেছে।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন