শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ‘সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করা সব শিক্ষার্থী-ই সমান, তাদরে মধ্যে কোন পার্থক্য নেই। আমরা কোনও পার্থক্য করি না। তারা সবাই আমাদের সন্তান ও জাতির ভবিষ্যৎ। সবার জন্য মানসম্মত শিক্ষা ও সুযোগ নিশ্চিত করতে চাই।’

২৭ ডিসেম্বর বুধবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির (বিইউ) দ্বিতীয় সমাবর্তনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে যারা ভালো করছে, তারা অবশ্যই অনুকরণীয় হবে। সরকার তাদের সহযোগিতা করবে। যারা কেবল মুনাফার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় খুলেছেন, ক্যাম্পাসে যাননি, শিক্ষার মান নিশ্চিত করেনি তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, গ্রেজুয়েটরা উন্নত দেশ গড়ার শক্তি। নিজের মেধা ও শক্তিকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল থেকে উন্নত করতে হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বিইউর ভিসি প্রফেসর ড. আনোয়ারুল হক শরিফ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য ও রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদের প্রতিনিধি হিসেবে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সভাপতিত্বে সমাবর্তনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ঢাকা ১৩’র সাংসদ ও আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, একুশের পদকপ্রাপ্ত ও অ্যামিরিটাস, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. আলমগীর মোহাম্মদ সিরাজউদ্দিন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, উচ্চ শিক্ষা ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে সরকারের নেওয়া যুগান্তকারী পদক্ষেপ ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের কাতারে নিয়ে যাবে।

ড. আলমগীর মোহাম্মদ সিরাজউদ্দিন বলেন, সফল মানুষদের ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিতে হয়। যারা ইতিহাস থেকে শিক্ষা গ্রহণ করতে ব্যর্থ হন, তারা একই ভুল বারবার করেন। শিক্ষার্থীদের অবশ্যই সবার আগে মানবিক গুণাবলির অধিকারী হতে হবে। তাদের কথায় না কাজে বড় হতে হবে। মানুষের মত মানুষ হতে হবে।

বাংলাদেশ ইউনিভার্সটির দ্বিতীয় সমাবর্তনে ১৯ জন শিক্ষার্থীকে স্বর্ণপদক ও ৪৮০৪ জনকে ডিগ্রি প্রদান করা হয়।

স/এন

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন