এবার বাজারে এলো ৩ চাকার মোটরবাইক

ইয়ামাহা এবার বাজারে নিয়ে এলো তিন চাকার মোটরসাইকেলের। তিন চাকার এই মোটর বাইকের নাম দেয়া হয়েছে ‘নিকেন’। জাপানি ভাষায় ‘নি’ মানে দুই। ‘কেন’ মানে হলো তরবারি। আদতে ‘নিকেন’একটি স্পোর্টস ঘরানার বাইক। সম্প্রতি জাপানের রাজধানী টোকিওতে অনুষ্ঠিত হয় ‘৪৫তম বার্ষিক টোকিও মোটর শো’।এই শোতে তিন চাকার এই বাইকটি প্রদর্শন করেছে ইয়ামাহা। বাইকটি তৈরিতে ইয়ামাহা লিনিং মাল্টি হুইলার প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে।ইয়ামাহা দাবি করছে তাদের তিন চাকার এই বাইকটি কর্নারিংয়ের জন্য আদর্শ। ট্রিপল সিলিন্ডার ইঞ্জিনের এই বাইকটির দাম বেশ চড়া। এটি শিগগিরই ইতালির মিলানে ইআইসিএমএ শোতে প্রদর্শন করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যুক্তরাজ্যের বে সিস্টেমস কোম্পানির কাছ থেকে প্রায় ৭০০ কোটি ডলারের টাইফুন শ্রেণির ২৪টি যুদ্ধবিমান কিনছে কাতার। গেল রোববার বে সিস্টেমস জানিয়েছে, এ বিষয়ে কাতারের সঙ্গে তাদের একটি চু্ক্তি হয়েছে।২০২২ সাল নাগাদ বিমানগুলো কাতারকে দেওয়া হবে। তবে সরবরাহ নির্ভর করছে অর্থ দেওয়া ও তা কোম্পানির হাতে আসার ওপর। ২০১৮ সালের মাঝামাঝি ‍চুক্তি অনুযায়ী অর্থ দেওয়ার কথা কাতারের। কাতারের রাজধানী দোহায় ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী গাভিন উইলিয়ামসন ও কাতারের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী খালিদ বিন মোহাম্মদ আল-আত্তিয়াহর উপস্থিতিতে দুই পক্ষের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর হয়। গাভিন বলেন, এই চুক্তির ফলে যুক্তরাজ্যে হাজার হাজার লোকের চাকরি হবে এবং শত শত বিলিয়ন ডলার ব্রিটিশ অর্থনীতিতে যুক্ত হবে। এক বিবৃতিতে বে সিস্টেমসের প্রধান নির্বাহী চার্লস উডবার্ন বলেছেন, ‘কাতার ও কাতারি সশস্ত্র বাহিনীর সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্কোন্নয়নের মাধ্যমে একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা হওয়ায় আমরা আনন্দিত এবং যেহেতু তারা তাদের সামরিক সক্ষমতা বাড়ানো অব্যাহত রেখেছে, সেহেতু আমরা আমাদের গ্রাহকের সঙ্গে ভবিষ্যতেও কাজ করার চিন্তা করছি।’ সেপ্টেম্বর মাসে কাতারের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বে সিস্টেমসের কাছ থেকে ২৪টি টাইফুন যুদ্ধবিমান কেনার আগ্রহ প্রকাশ করে একটি চুক্তি করেছিলেন। ওই খবর প্রকাশিত হওয়ার পর উপসাগরীয় অন্যান্য দেশ ক্ষুব্ধ হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত যুদ্ধবিমান কেনার আনুষ্ঠানিক চুক্তি সম্পাদন করল কাতার। চুক্তি অনুযায়ী ৬৭০ কোটি ডলার পাবে বে সিস্টেমস।

স/এষ্

Print Friendly, PDF & Email