রাজাপুরে নিভৃতে কাঁদে মানবতার বাণী

 

খাইরুল ইসলাম, ঝালকাঠি প্রতিনিধি:

১০ ডিসেম্বর মানবাধিকার দিবসের ‘চলুন সমতা, ন্যায় বিচার এবং মানুষের মর্যাদার জন্য দাঁড়াই’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে সারা দেশের ন্যায় রাজাপুরেও এ দিবসটি একযোগে পালনের কথা থাকলেও বেসরকারি মানবাধিকার সংগঠন গুলো এ দিবসটি উদ্যাপন করেনি। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার মানবাধিকারের পরিপূরক। বাংলাদেশে সরকারি ভাবে দিবসটি পালিত না হলেও মানবাধিকার সংস্থাগুলোসহ অনেক বেসরকারি সংগঠন দেশব্যাপি দিবসটি পালন করে।

মানবতাবোধকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে ১৯৪৮ সালের এই দিনে ফ্রান্সের প্যারিসে জাতিসংঘ সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সর্বজনীন মানবাধিকার সনদ সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়। সেই থেকে বিশ্বব্যাপী দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হচ্ছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালিত হয়েছে ১০ডিসেম্বর।

জাতিসংঘ ঘোষিত বিশ্ব মানবাধিকার দিবসের ৭০ বছর হিসেবে এবার এই প্রতীকী আলোয় আলোকিত হতে যাচ্ছে বিশ্বের আরও অনেকগুলো উলে¬খযোগ্য স্থাপনা। এবার নিউইয়র্ক থেকে সিডনি এবং তাইপেই থেকে টরোন্টো সবখানের উল্লেখযোগ্য স্থাপত্য নিদর্শনগুলো ভাসবে মানবাধিকারের একাত্মতায় নীল আলোর বন্যায়।মানবাধিকার প্রত্যেক মানুষের জম্মগত মৌলিক অধিকার। দেশের সংবিধানেও এটি সংরক্ষণের কথা বলা আছে। মানুষের প্রতি মানুষের কর্তব্য-দায়িত্ব সর্বোপরি মানবতার প্রতি সম্মান প্রদর্শনই মানবাধিকার ঘোষণার মূল মন্ত্র।

যারা সারা বছর মানবাধিকার সংগঠনের কথা বলেন, তারা শুধু আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে উপজেলার জনসচেতনতা বাড়াতে নেই কোন উদ্দোগ। এরা উপজেলায় মানবাধিকার সংগঠনের শাখা অফিস তৈরি করে এবং মানবাধিকার কর্মীর পরিচয় পাড়া-মহল্লা, অলিগলিতে এসব সাইনবোর্ড ও প্যাডসর্বস্ব সংগঠনের কর্মকান্ডে ক্ষুন্ন হচ্ছে দেশের প্রতিষ্ঠিত মানবাধিকার সংগঠনগুলোর ভাবমূর্তি।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার উপজেলার সাধারন সম্পাদক ও অবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবুল কায়সার সিকদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বৈরী আবহাওয়ার দোহাই দিয়ে বিষয়টি এড়িয়ে যান।

রাজাপুর প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সাবেক সভাপতি প্রবীন সাংবাদিক আবদুল বারেক ফরাজী বলেন, উপজেলার সাধারন মানুষের প্রতিনিয়ত মনবাধিকার লঙ্ঘন হলেও তথাকথিত এসব সাইনবোর্ড ও প্যাডসর্বস্ব সংগঠনের কোন ভূমিকা দেখা যায়না।

অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শাহজাহান মোল্লার কাছে জানতে চাইলে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যেখানে দেশের মানবাধিকার রক্ষার জন্য রাজনৈতিক দলগুলো রাজপথে দাড়ায়, সেখানে রাজাপুর উপজেলার মানবাধিকার সংগঠন গুলোর বেহাল দশা দেখে আমি উপজেলার সাধারন মানুষের মানবাধিকার নিয়ে উদ্বিগ্ন।

স/মা

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন