অনলাইন ডেস্ক

১৮৮২ সাল থেকে অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডের মধ্যে হচ্ছে অ্যাশেজ সিরিজ। বাংলায় ‘অ্যাশেজ’ মানে ছাই। সে অনুযায়ী এটাকে ছাই যুদ্ধও বলা যায়। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এই সিরিজ তথা অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের ময়দানি লড়াই পেয়েছে শিল্পের মর্যাদা। এখন যুদ্ধটা আভিজাত্যের, মর্যাদার। যে লড়াই দেখার জন্য ক্রিকেট বিশ্বের কোটি কোটি দর্শক অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেন। আর দুই দলের ক্রিকেটাররা অপেক্ষা করে নিজেদের প্রমাণ করতে।

আরো একবার নিজেদের শক্তিমত্তা ও সামর্থের প্রমাণ দিতে প্রস্তুত অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড দল। আজ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় শুরু হবে ৫ ম্যাচ অ্যাশেজ সিরিজের প্রথমটি। যা ব্রিসবেন ক্রিকেট গ্রাউন্ড থেকে সরাসরি সম্প্রচার করবে সনি সিক্স।

ঐতিহ্যবাহী এই লড়াইয়ে অস্ট্রেলিয়া এগিয়ে। তবে নতুন অধ্যায়েরও সৃষ্টি হতে পারে। এই সিরিজ মাঠে গড়ানোর আগে কথার লড়াই হয়েছে অনেক। এবার ময়দানি লড়াইয়ের পালা। লড়াইটা হবে মূলত অস্ট্রেলিয়ার বোলার ও ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে। সে জন্য গ্যাবার উইকেটটি হতে যাচ্ছে পেস বান্ধব, বাউন্সি। যেখানে গেল ৩১ বছরে ইংল্যান্ড কোনো টেস্ট জিততে পারেনি।

পরিসংখ্যানে চোখ বুলালে দেখা যায় দুই দল এ পর্যন্ত ৬৯টি সিরিজ খেলেছে। তার মধ্যে অস্ট্রেলিয়া জিতেছে ৩২টিতে। সমান সংখ্যক সিরিজ জিতেছে ইংল্যান্ডও। এবার সিরিজ জিতে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ উভয় দলের সামনে। সমান সংখ্যক সিরিজ জিতলেও ব্যক্তিগত অর্জনের দিক দিয়ে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যান ও বোলাররা এগিয়ে। ব্যাট হাতে সর্বোচ্চ ৫ হাজার ২৮ রান করেছেন স্যার ডন ব্র্যাডম্যান। আর বল হাতে সর্বোচ্চ ১৯৫টি উইকেট নিয়েছেন শেন ওয়ার্ন।

তবে এই টেস্টটি জিতে উভয় দল এগিয়ে যেতে চায়। শক্তিমত্তা ও ঘরের মাঠে খেলা হওয়ায় অস্ট্রেলিয়া এগিয়ে রয়েছে। ইংল্যান্ডও এগিয়ে রাখছে অস্ট্রেলিয়াকে। কিন্তু তারা কথা দিয়ে নয়, ময়দানি লড়াইয়ে প্রমাণ দিতে চায়।

এবার ময়দানি লড়াইয়ের পালা। যা দেখতে মুখিয়ে আছে ক্রিকেটপ্রেমীরা।

স/মা
print
Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন