অনলাইন ডেস্ক

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এশিয়া সফরকালে টুইট করে বিরোধীদের সমালোচনা করে জানান, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন-কে ‘বেঁটে বা মোটা’ বলতে চান না তিনি। কিম তাকে ‘বুড়ো’ বলে অপমান করলেও ট্রাম্প তাকে কখনোই ‘বেঁটে বা মোটা’ বলবেন না।

যদিও মার্কিন প্রেসিডেন্ট এভাবেই ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে অপমানমূলক প্রত্যুত্তর দিলেন কিমকে। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন প্রত্যুত্তরে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত। ট্রাম্প ‘কাপুরুষ’, তিনি আন্তঃকোরীয় সীমান্ত সফর বাতিল করেছেন। খবর গার্ডিয়ান।

এদিকে, ট্রাম্প রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক, পিয়ংইয়ং-এর পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে চীনের পদক্ষেপ এবং উত্তর কোরিয়ার প্রশাসক কিমকে নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক টুইটও করেন। ট্রাম্প উত্তর কোরিয়া, সিরিয়া, ইউক্রেন, সন্ত্রাসবাদ এই বিষয়গুলোতে সমাধান চান, যাতে রাশিয়ার মতো দেশ সাহায্য করতে পারে। আর এই বক্তব্য রাখার পাশাপাশি তিনি কিমের উদ্দেশ্যে জানান, কিম জং উন তাকে বুড়ো বলে অপমান করেছেন কিন্তু তিনি কখনোই কিমকে বেঁটে এবং মোটা বলবেন না। জবাবে উ. কোরিয়ার কমিউনিস্ট পার্টির মুখপাত্র রডং সিনমুনের সম্পাদকীয়তে বলা হয়, ‘আমাদের সর্বোচ্চ নেতৃত্বকে ক্রমাগত অপমান করার ধৃষ্টতা দেখাচ্ছেন ট্রাম্প। তার যে অপরাধ, তা কখনো ক্ষমা করা যাবে না।

তার জানা দরকার যে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ার নাগরিকদের নিকট মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত কুৎসিত অপরাধী ছাড়া আর কিছু নয়। ‘ যদিও ভিয়েতনামে একটি সংবাদ সম্মেলনে ‘কিমের বন্ধু নিজেকে দেখতে পারবেন কী-না’ জানতে চাইলে ট্রাম্প জানান, এটা হলে খুবই অদ্ভুত হবে। এটা উত্তর কোরিয়া এবং সারা বিশ্বের জন্য ভালো হবে। এটা হতেও পারে।

স/মা

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন