ভালুকায় মাল্টার বাম্পার ফলন

ভালুকায় মাল্টার বাম্পার ফলন

মোঃ মমিনুল ইসলাম, ভালুকা প্রতিনিধি:

ময়মনসিংহের ভালুকায় এবার গ্রীন মাল্টার বাম্পার ফলন হয়েছে। মাটি ও আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এ অঞ্চলে দিন দিন বাড়ছে মাল্টা চাষ। স্বল্প সময় ও খরচে অধিক লাভ হওয়ায় এ অঞ্চলের চাষীরা ঝুঁকছে মাল্টা চাষে।

এখানকার ফরমালিনমুক্ত মাল্টা স্থানীয় চাহিদা পূরণ করে পাঠানো হচ্ছে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায়। মাল্টার উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য চাষীদেরকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করে যাচ্ছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ।

ভালুকার মন্মথ সরকার, বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক পাওয়া একজন মাল্টা চাষী। এলাকায় মাল্টা বাবু নামে পরিচিত তিনি। ২০০৯ সালে মাত্র একটি চারা দিয়ে শুরু করেন মাল্টা চাষ। সেই গাছ থেকে চারা উৎপাদন করে বর্তমানে তার মাল্টা গাছের সংখ্যা ৩০০টি এবং চারা রয়েছে প্রায় দশ হাজার। ২০১৫ সাল থেকে বাজারে বিক্রি শুরু করেন বারি-১ জাতের গ্রীন মাল্টা। মাল্টাগুলো ফরমালিনমুক্ত হওয়ায় স্থানীয় বাজারে এসবের চাহিদা অনেক। মাল্টা ফল ও চারা বিক্রি করে মন্মথ সরকারের বাৎসরিক আয় প্রায় ১৫ লাখ টাকা। সরকারি সহযোগিতা পেলে স্থানীয় বাজার ছাড়াও সারাদেশের মাল্টার চাহিদা মেটানো সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।

মন্মথ সরকারের সাফল্য দেখে তার কাছ থেকে চারা কিনে এ অঞ্চলে অনেকেই শুরু করেছে মাল্টা চাষ। এর ফলে একদিকে যেমন বৃদ্ধি পেয়েছে মাল্টা চাষ, অন্যদিকে অনেক বেকার যুবকের জন্য সৃষ্টি হয়েছে কর্মসংস্থানের। ভালুকার বাগানের মাল্টাগুলো বিষমুক্ত, মিষ্টি ও ভালো চাহিদা হওয়ায় দূরদূরান্ত থেকে পাইকাররা এসে কিনে নিয়ে যাচ্ছে এখানকার মাল্টা।

ভালুকা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার পাল জানান, ‘ভালুকায় প্রায় দেড়শ হেক্টর জমিতে লেবু জাতীয় ফসল উৎপদান করা হচ্ছে। মাল্টা চাষের জন্য কৃষকদেরকে সরকারি উদ্যোগে বিভিন্ন ধরণের সাহায্য সহযোগিতা করা হচ্ছে। সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা বৃদ্ধি করা হলে এ অঞ্চলে মাল্টার উৎপাদন আরো বৃদ্ধি করা সম্ভব।

স/মা

Print Friendly, PDF & Email