সাঈদ ইবনে হানিফ 

অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও পর্যাপ্ত ক্লাস রুমের অভাবে শিক্ষাকার্য্যক্রম চরম ভাবে ব্যাহত হচ্ছে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার বসুয়াড়ী ইউনিয়নের ওয়াদীপুর আলিম মাদ্রাসার। ফলে দীর্ঘ বছর যাবৎ পরিছন্ন পরিবেশ ও আধুনিক সুযোগ সুবিধা বঞ্চিত প্রতিষ্ঠানটি শিক্ষার্থীদের ধরে রাখতে হিমসীম খাচ্ছে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। দৈনিক সত্যপাঠ প্রতিবেদকের সাথে আলাপ কালে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওঃ ইব্রাহিম খলিল বলেন, ১৯৭৬ সালে উক্ত গ্রামের আলহাজ্জ্ব গহর আলীর পুত্র মাওঃ আব্দুর রাজ্জাক নিজ উদ্যোগে কতিপয় ব্যক্তিকে সাথে নিয়ে মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন। শুরু থেকেই তার পিতা প্রতিষ্ঠানটি দাড় করানোর কাজে উৎসাহ যোগান দিতেন। সেই থেকে একটু একটু করে মাদ্রাসাটি প্রাতিষ্ঠানিক রূপ নিতে শুরু করে। এরপর অব্যহত ভাল ফলাফল ও শিক্ষার্থীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ায় ১৯৯৫ সালে মাদ্রাসাটি সরকারী এম,পিও ভূক্তি হয়। মূলতঃ এম,পিও ভূক্তির পরই শুরু হয় প্রতিষ্ঠানটির প্রতিযোগিতার পালা। শিক্ষকদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সাথে পাল্লা দিয়ে উপজেলার প্রথম সারির মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসাবে পরিচিতি লাভ করে। যার ফলে মাদ্রাসাটি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম হয়। বর্তমানে মাদ্রাসাটির (এবতেদায়ী – দাখিল – আলিম) তিন সেকশনে শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৪৫০ জন। ভাল ফলাফল ও শিক্ষার্থীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পেলেও অবকাঠামোগত কোন উন্নয়ন হয়নি প্রতিষ্ঠানটির। সরেজমিনে দেখা যায়, পর্যাপ্ত ক্লাস রুম ও পরিবেশগত আধুনিক উন্নয়নের অভাবে শিক্ষা কার্য্যক্রম চরম ভাবে ব্যাহত হচ্ছে। যেখানে কোমল মতি শিক্ষার্থীরা ভাঙ্গা বেড়া ও টিনের ছাউনির নিচে ধুলাবালিতে আচ্ছান্ন জায়গায় ক্লাস করছে।

এ বিষয়ে মাদ্রাসার সভাপতি শেখ সাদেক হোসেন বলেন উপজেলার প্রথম সারির শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ওয়াদীপুর আলিম মাদ্রাসার হাল চিত্র ইতোমধ্যেই সংসদ সদস্য রনজিৎ রায়কে সরেজমিনে দেখানো হয়েছে। তিনি সরকারের আধুনিক শিক্ষা উন্নয়ন কার্যক্রমের অধীনে ৯১ লক্ষ টাকা ব্যয়ে মাদ্রাসাটির ভবন নির্মান করার আশ্বাস দিয়েছেন। আশা করা যাচ্ছে খুব দ্রুতই এই ভবন নির্মান কার্যক্রম শুরু হবে। তিনি আরো বলেন প্রতিষ্ঠানটির ভবন নির্মান করা হলে আধুনিকতার দিক থেকে পিছিয়ে থাকা প্রতিষ্ঠানটি এলাকাবাসীর ও শিক্ষার্থীদের নজর কাড়তে সক্ষম হবে।

স/মা

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন