মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি :

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরকেওয়ার ইউনিয়নের নলবুনিয়াকান্দি গ্রামে জাকির মিয়ার বাংলো বাড়ীতে মাদক বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, ঈদা খাঁন নামের এক ব্যক্তির জমি দখল করে এই বাংলো বাড়ীটি নির্মাণ করা হয় বলে জানান স্থানীয়রা। বাড়ীটি নির্মাণের পর থেকে এই বাড়ীর মালিক বাড়ীতে থাকেন না। বেশীরভাগ সময় বাড়ীটি পরিত্যাক্ত অবস্থায় থাকে । এই সুযোগটা কাজে লাগিয়ে এই বাড়ীটিতে মাদক বিক্রি ও সেবনের নিরাপদ আশ্রয় বানিয়েছেন মাদক বিক্রেতারা। বাড়ীর প্রকৃত মালিক ঢাকা থাকেন মাঝে মধ্যে আসে আবার চলে যায়। তারা আসলে দুই একদিন থেকে চলে যায়। দিনভর এই বাড়ীটি ঘিরে চলে মাদকের রমরমা ব্যবসা। সন্ধ্যা আর রাত হলেই এখানে শুরু হয় মাদক বিক্রি, সেবন আর অসামাজিক কার্যকলাপ। বাড়ীটি স্থানীয় এক ইউপি সদস্য ইমরান কবিরের বড় ভাইয়ের। এ কারনে এলাকার কেউ ভয়ে প্রতিবাদ করার সাহস পায়না। তাছাড়া ইউপি সদস্য ইমরান কবিরের একটি লাইসেন্সকৃত পিস্তল আছে । সেটা দিয়ে নাকি গ্রামের সাধারন মানুষক ভয় দেখানো হয় । এমনটাই জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

নলবুনিয়াকান্দি গ্রামের বাসিন্ধা সিদ্দিক জানান, এই জমির জায়গাটি জোর করে দখল করে এই বাড়ীটি নির্মাণ করা হয়েছে। এই বাড়ীতে কেউ থাকেনা বলে এখানে নানাধরনের অসামাজিক কার্যকলাপ হয়।

স্থানীয় প্রতিবেশী বাবুল সরকার জানান, জমি জোর দবস্ত করে নেওয়া তাদের কাজ । এই বাড়ীটিকে ঘিরে মাদক ব্যবসা এবং এর আড়ালে ব্যাপকহারে অসামাজিক কাজও হয় । আর এই কাজগুলো মুক্তার নামের একজন পরিচালনা করে। এবং এই কাজের সঙ্গে মো: জাকির হোসেনর হাত রয়েছে। নইলে সে প্রতিবাদ করিত।
বিষয়ে জানতে চেয়ে বাড়ীর মালিক মো: জাকির হোসেন সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য ইমরান কবির বলেন, সাপ্তাহে একবার বাড়ীতে আসা হয় । আমার চোখে এমন কিছু আজও ধরা পড়েনি। লাইসেন্সকৃত পিস্তলের বিষয়ে তিনি বলেন, আমার যে পিস্তল আছে সেটা আজও গ্রামের কেউ দেখেছে এমন কোন প্রমান দিতে পারবে না। কারা মাদক বিক্রি, সেবনের সাথে জড়িত তাদের বিচার হোক এটা আমিও চাই।

এলাকার যুবসমাজকে বাঁচাতে এই বাড়ীটিকে আইনী নজরদারিতে এনে কারা মাদক বিক্রি ও অসামাজিক কাজের সাথে জড়িত তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে পুলিশ প্রশাসন কার্যকরী পদক্ষেপ নিবে এমনটাই দাবি স্থানীয়দের।

স/এষ্

print

Facebook Comments

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন