বোয়ালমারীতে বাদীপক্ষের উপর হামলা, মোটরসাইকেলে আগুন বাড়িঘর ভাংচুর নারীসহ আহত ৮

বোয়ালমারীতে মামলা তুলে না নেয়ায় বাদীপক্ষের উপর হামলা মোটরসাইকেলে আগুন বাড়িঘর ভাংচুর নারীসহ আহত ৮

বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি : ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে মামলা তুলে না নেয়ায় বাদীপক্ষের উপর হামলা করেছে আসামী পক্ষের লোকজন। শুক্রবার ১৯ ফেব্রুয়ারি বিকেলে উপজেলার পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের পরমেশ্বরদী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

বাদী ওহিদ মিয়া বলেন, পূর্বের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের লাথির আঘাতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর পেটের বাচ্চা নষ্ট হয়ে যায়। এ ঘটনায় গত বছরের ২৯ নভেম্বর বোয়ালমারী থানায় আমি বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করি। ওই মামলা তুলে নিতে মামলার ১ নং আসামী সরোয়ার খা আমার প্রাণনাশের হুমকিসহ বিভিন্ন ভাবে চাপ প্রয়োগ করছিল। আমি পেশাগত কাজে ঢাকায় থাকি। শুক্রবার পারিবারিক একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গ্রামের বাড়ি পরমেশ্বরদী আসি।

www.linkhaat.com

এ সময় সরোয়ার খার নেতৃত্বে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে সরোয়ার খার ছেলে সেনা সদস্য সাইফুল খান, রওশন মুন্সীর ছেলে সেনা সদস্য বদর মুন্সী, আইয়ুব খন্দকার, মনেজ মৃধা, লিঠু মিয়াসহ শতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্র রামদা, ছেনদা, লোহার রড, লোহার পাইপ ইত্যাদি নিয়ে আমিসহ ওই অনুষ্ঠানে যোগ দেয়া আমার আত্মীয়দের উপর হামলা করে। এতে সোহাগ মিয়া (৩০), রাজিয়া বেগম (২৬), মাসুদ মিয়া (২৮), মেহেদী হাসান (২৫), মাসাদ মিয়া (২৫), সাইফুল ইসলাম জাসু (৩০), মুন্সী হাফিজুর রহমানসহ আমি নিজে আহত হই। আহতদের বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ সময় দুর্বৃত্তরা ৩টি বাড়িঘর ভাংচুর করে ও একটি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। হামলার ব্যাপারে জানতে সরোয়ার খার সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে, তিনি ব্যস্ত আছে বলে ফোন কেটে দেন।

বোয়ালমারী থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ নুরুল আলম বলেন, হামলার ঘটনা শোনার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। এখন পর্যন্ত থানায় কোন পক্ষই লিখিত অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, জমিজমা ও আধিপত্য নিয়ে রাসেল কাজী এবং রিপন মিয়ার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিলো। এর জেরে গত বছরের ২৭ নভেম্বর সরোয়ার খার নেতৃত্বে ১০/১৫ জন অতর্কিতে আক্রমণ করে রিপন মিয়ার ১৫ সমর্থকের বাড়িঘর ভাংচুর করে।

তখন সরোয়ার খার লাথির আঘাতে রিপন মিয়ার মামাতো ভাই ওহিদ মিয়ার স্ত্রী শিউলির (৩০) পেটের ৩/৪ মাসের বাচ্চা নষ্ট হওয়ার অভিযোগে বোয়ালমারী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছিলেন ওহিদ মিয়া।

স/এষ্

Print Friendly, PDF & Email
Spread the love

Warning: A non-numeric value encountered in /home/chomoknews/public_html/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 997