বোয়ালমারী পৌর নির্বাচন: প্রচারে এগিয়ে আ’লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী, কৌশলে হাটছে বিএনপি

বোয়ালমারী পৌর নির্বাচন: প্রচারে এগিয়ে আ’লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কৌশলে হাটছে বিএনপি

হাসান মাহমুদ মিলু, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি : ফরিদপুরের বোয়ালমারী পৌরসভা নির্বাচনে মাইকিং, পথসভা, গণসংযোগসহ চলছে বাড়িতে বাড়িতে ভোট প্রার্থনা। প্রচার-প্রচারণায় ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ মাঠে থাকলেও প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি এগোচ্ছে ভিন্ন কৌশলে। ফলে ভোটারদের মাঝে নেই কোন উৎসাহ-উদ্দীপনা।

আগামী ১৬ জানুয়ারী অনুষ্ঠিতব্য বোয়ালমারী পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৩ প্রার্থী ভোটযুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছেন। প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী সাংবাদিক সেলিমরেজা লিপন, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আঃ শুকুর শেখ ও আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোঃ লিটন মৃধা।

www.linkhaat.com

নৌকার প্রার্থী সাংবাদিক সেলিম রেজা লিপন ও জগ মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থী লিটন মৃধার পক্ষে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চললেও তেমন জৌলুশ নেই ধানের শীষের প্রার্থী শুকুর শেখের প্রচারকার্যে। নৌকার পক্ষে এরই মধ্যে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য ও ফরিদপুর- ১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মোঃ আব্দুর রহমান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত সিকদার, বোয়ালমারী উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এমএম মোশাররফ হোসেন মুশা মিয়া, সাধারণ সম্পাদক শাহ্ জাহান মীরদাহ পিকুলসহ সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।

তাদের নির্বাচনী ক্যাম্পগুলোও সরব থাকছে কর্মী-সমর্থকদের ভীড়ে। বেশ প্রাণচাঞ্চল্যও আছে তাদের মধ্যে। জোরেশোরে চলছে নির্বাচনী সভা-সমাবেশসহ নানা তৎপরতা। বিগত ৩টি পৌর নির্বাচনে আ’লীগের জয় থেকে গেছে অধরা। তাই এবারের এই নির্বাচন আওয়ামীলীগের অনেকটা মর্যাদার লড়াই হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে কারনে আটসাট বেধে মাঠে নেমেছে আ’লীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মী।

অপরদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ লিটন মৃধা ব্যক্তিগত কর্মী বাহিনী নিয়ে চালাচ্ছেন প্রচারণা। পক্ষান্তরে এর ঠিক উল্টো চিত্র দেখা যাচ্ছে দুই বারের সাবেক মেয়র প্রবীন বিএনপি নেতা আঃ শুকুর শেখের ক্ষেত্রে। গোটা পৌরসভা ঘুরে হালকা কিছু পোস্টার আর দু’একটা প্রচার মাইকে ধানের শীষে ভোট চাওয়ার শব্দ শোনা গেলেও দেখা মিলছেনা কোন নির্বাচনী অফিসের।

পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ব্যাপক কর্মী-সমর্থককে ভোট চাইতে দেখা গেলেও চোখে পড়ছে না কোন বৈঠক, মিছিল, সভা-সমাবেশ। দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে তাই নেই তেমন উৎসাহ-উদ্দীপনা, নেই দৌঁড়-ঝাঁপ।

একাধীক ভোটারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বোয়ালমারী গর্ভনর খ্যাত রাজনীতিবিদ আব্দুল হামিদ বাবু মিয়ার জৈষ্ঠ্য পুত্র সাংবাদিক লিপন মিয়া নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিলেও আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী লিটন মৃধা এর আগে জেলা পরিষদ ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। অন্যদিকে আঃ শুকুর শেখ প্রবীণ রাজনীতিবীদ বোয়ালমারী পৌরসভার প্রথম নির্বাচিত মেয়র।

দ্বিতীয় মেয়াদে তিনি ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পুণঃনির্বাচিত হন। বিগত পৌর নির্বাচনে শুকুর শেখ ও নৌকার প্রার্থী শাহজাহান মৃধা পিকুলকে পরাজিত করে মেয়র হন স্বতন্ত্র প্রার্থী মোজাফফর হোসেন বাবলু মিয়া। অল্প ভোটের ব্যাবধানে তার কাছে পরাজয় বরণ করেণ শুকুর শেখ।

বোয়ালমারী উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সামসুদ্দীন মিয়া ঝুনু বলেন, সাড়াদেশ জুড়ে যে নির্বাচনী সাংস্কৃতি গড়ে উঠেছে তার উপর আস্থা রাখতে কষ্ট হচ্ছে। নির্বাচনের শেষ পর্যায়ে কী থেকে কী হয় এমন শঙ্কা থেকেই ভেবে-চিন্তে নির্বাচনে সর্বশক্তি নিয়োগ করতে হচ্ছে। তবে হতাশার কিছু নেই।

এক প্রশ্নের জবাবে ধানের শীষের প্রার্থী আঃ শুকুর শেখ বলেন, বোয়ালমারীতে বিএনপি অনেক শক্তিশালী দল। পৌরসভা গঠনের পর আমরাই দু’বার মেয়র হয়েছি। অত হৈ-চৈ করে কি লাভ? লাফা-লাফিতে কখনো ভোট বাড়ে না। ভোটারা নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারলে শেষ গোলটা বিএনপিই দেবে বলে তিনি প্রত্যয় ব্যক্ত করে।

আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোঃ লিটন মৃধা বলেন, ভোটারা আমাকে চায়, তাদের মতামতকে শ্রদ্ধার সাথে নিয়ে আমি নির্বাচন করছি। ১৬ তারিখে আমাকেই ভোটারা তাদের রায় দেবেন বলে আমি মনে করি। দল আমার বিরুদ্ধে একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমি তা মাথা পেতে নিয়েছি।

আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী সাংবাদিক সেলিম রেজা লিপন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়েছে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রাখতে ১৬ জানুয়ারি নির্বাচনে ভোটাররা আমাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবে বলে আমি আশা রাখি। আমি নির্বাচিত হলে মাদকমুক্ত, চাঁদাবাজমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত একটি সমৃদ্ধশীল পৌরসভা গঠন করবো যা সারা দেশের জন্য রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠা করব।

উল্লেখ্য, আগামী ১৬ জানুয়ারি বোয়ালমারী পৌর নির্বাচন। ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত এ পৌরসভা নির্বাচনে ৩জন মেয়র প্রার্থী, সংরক্ষিত কাউন্সিলর হিসেবে ১১জন ও সাধারণ কাউন্সিলর হিসেবে ৩৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। প্রথম শ্রেণির এ পৌরসভায় মোট ভোটার ২২ হাজার ২৭৯জন যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ১০ হাজার ৮৮৩ জন ও মহিলা ভোটার ১১ হাজার ৩৯৬জন।

স/এষ্

Print Friendly, PDF & Email
Spread the love

Warning: A non-numeric value encountered in /home/chomoknews/public_html/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 997