আবারো গৌরীপুরে স্কুল ফিডিংয়ের বিস্কুট চুরি

শেখ বিপ্লব গৌরীপুর থেকে : আবারো ময়মনসিংহের গৌরীপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর মাঝে স্কুল ফিডিংয়ের এককালীন বিস্কুট বিতরনে অনিয়ম দুর্নীতির ঘটনা ঘটেছে।শনিবার (৯ মে) সকাল ১০ টায় পৌর শহরের ঘোষপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক আঃ মান্নান এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে।এ নিয়ে অভিভাবকদের মাঝে চরম উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারনে সারা দেশে লক ডাউন ঘোষনা করায় সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্টান বন্ধ ঘোষনা করে সরকার। সে কারনে শিক্ষার্থীদের মাঝে নিয়মিত স্কুল ফিডিংয়ের বিস্কুট বিতরন করা সম্ভব হয়নি। গত ৭ মে এ উপজেলার ১৭৭ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৪ টি মাদ্রাসায় ৩৫ হাজার ৬০৩ জন শিক্ষার্থীর মাঝে একযুগে ১২ হাজার ৮১৭ কার্টুন স্কুল ফিডিংয়ের এককালীন বিস্কুট বিতরণ করা হয়েছে।

www.linkhaat.com

এক সাথে ৩৬ পেকেট বিস্কুট বিতরনের সুযোগকে কাজে লাগিয়ে প্রধান শিক্ষক আঃ মান্নান অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ৩৬ পেকেটের স্থলে ৩১ ও ৩২ পেকেট বিস্কুট বিতরন করে।অবশিষ্ট বিস্কুক বস্তায় ভরে বাইকে করে স্কুল থেকে সড়িয়ে ফেলে বলে অভিভাবকরা জানায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ৫ম শ্রেনীর ও ৩য় শ্রেণীর শিক্ষার্খী জানায়, তাদের ৩২ পেকেট বিস্কুট দিয়েছে।
এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষাক আঃ মান্নানের কাছে জানতে চেয়ে উনার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে প্রথমে উনার স্ত্রী ফোন রিসিভ করে বলেন স্যার বাজারে গেছে। কয়েক সেকেন্ড পার হতে না হতেই তিনি বলেন আপনার স্যার বাজর থেকে চলে এসেছে কথা বলেন। প্রধান শিক্ষক আঃ মান্নানের কাছে বিস্কুট কম দেয়ার বিষয়ে জানতে চইলে তিনে রিতিমত ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন কে অভিযোগ করেছে।

পরক্ষনেই তিনি সত্যতা স্বীকার করে বলেন বিস্কুট ইদুরে খেয়েছে তাই কম দিতে হয়েছে।৮৮ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ৩২ পেকেট করে বিতরন করলে অবশিষ্ট থাকে আরো প্রায় ৩৫০ পেকেট সব গুলি কি ইদুরে খেয়েছে ? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন আমি এখন যুগান্তর পাঠক ফোরোমের স্বজন সমাবেশের অফিসে বসা বলে ফোন রেখে দেন। যার প্রশ্নে আর উত্তরের কোন মিল নেই।

এ ব্যাপারে স্বজন সমাবেশে পৌর শাখার সভাপতি শ্যামল ঘোষ বলেন এটা মিথ্যা বলছে উনি তখন এখানে ছিল না। গৌরীপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মনিকা পারভিনকে বিষয়টি অবগত করলে তিনি বলেন,বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

উল্লেখ্য, প্রধান শিক্ষক আঃ মান্নানকে পূর্বে মইলাকান্দা ইউনিয়নের কাউরাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যায়লে থেকে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয় সহনাটি ইউনিয়নের পল্টিপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। অদৃশ্য খুটির জোরে তিনি সেখানে যোগদান না করে ঘোষপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যোগদান করেন।

স/এষ্

Print Friendly, PDF & Email
Spread the love

Warning: A non-numeric value encountered in /home/chomoknews/public_html/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 997