তিতুমীর কলেজে পালিত হলো মিলন মেলা

মতিউর রহমানঃ “আলোকিত পঞ্চাশ বছর” লেখাপড়া শেষ হতে পারে, জীবনের ইতি গড়তে পারে, বাস্তব জীবনের অনেক কিছুই শেষ হতে পারে। কিন্তু শেষ হয় না জীবনের কিছু স্মরণীয় দিন, কিছু আনন্দঘন দিন। ঠিক তেমনই বিস্ময়কর হলে ও সত্য যে সরকারি তিতুমীর কলেজে মিলিত হলো, কলেজ প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে বর্তমান শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা। যার মধ্যে দিয়ে হারিয়ে যাওয়া সকল বন্ধু থেকে শুরু করে কলেজের ঐতিহ্য বা সাজসজ্জা গুলোকে একনজরে দেখতে সবাই খুবই উৎসাহিত সবাই। এই লক্ষ্য আজ মহা উৎসবে কলেজ প্রাঙ্গণ মুখরিত হয় সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের পদচারনায়।

www.linkhaat.com

শনিবার সকাল থেকেই নবীন-প্রবীণদের মিলেনমেলায় কলেজ ক্যাম্পাস মুখরিত হয়ে উঠে।

সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসব বেলুন উড়িয়ে উদ্বোধন করেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এবং বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সি। উদ্বোধনী পর্বে পঞ্চাশ বছর পূর্তি উৎসবের আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী ও বতর্মানে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সি। ে

স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে তিনি বলেন, কলেজে আসলে তার অনেক স্মৃতি মনে পড়ে। প্রতি বছর এ ধরনের পুনর্মিলনীর আয়োজন করার অনুরোধ করেন তিনি।

একটা মাত্র ভবন ছিল সেটাও গোডাউনের মতো। সেগুলো পরিষ্কার করে ক্লাস করার উপযোগী করে তোলা… সেই কলেজ। ৭৩ সালে আমি যখন ফাইনাল ইয়ারে তখন পাঁচশ বা সাড়ে পাঁচশর মতো ছাত্র। সেই কলেজ আজ কত এগিয়ে গেছে। অনেক কীর্তিমান এই কলেজ থেকে পাশ করে বেরিয়ে গেছে।

প্রতি বছর যদি আমরা একবার করে মিলিত হতে পারি সেটা সবার জন্যই ভালো হবে। সত্তর বছর বয়স হয়ে গেছে। দিন মনে হয় আর বেশি পাব না, আর কয়বার এখানে আসতে পারব জানি না। যে ক’বছর বাঁচি আমরা সবাই এক সাথে হই।”

নতুন প্রজন্মকে মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করার আহ্বান জানান অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। তিনি বলেন, সুন্দর বাড়ি-গাড়ি, কোটি কোটি টাকা আর বড় পদ পাওয়ার নাম রাজনীতি নয়।

রাজনীতির সংস্কৃতি হবে আত্মোৎসর্গের, মানুষের কাজে নিজেকে উৎসর্গ করা আর নিজের যা কিছু আছে তা সবার মাঝে বিলিয়ে দেওয়ার। এই কলেজের শিক্ষক, ছাত্র, সুধীজন সবার কাছে বিনয়ের সাথে প্রার্থনা- একটা অবনতিকর অবস্থা থেকে জাতিকে ফিরিয়ে আনতে হবে। নৈতিকতা এবং মূল্যবোধের যে অবক্ষয় হয়েছে সেখান থেকে যদি আমরা ফিরে আসতে না পারি তাহলে আমাদের সভ্যতা ধ্বংস হয়ে যাবে।

অনুষ্ঠানে কলেজের পরিসর বাড়াতে কিছু জমির ব্যবস্থা নিতে পূর্তমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানানো হয়। বিষয়টি বিবেকচনার আশ্বাস দেন মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

অনুষ্ঠানে কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আশরাফ হোসেন, ঢাকা ১৭ আসনের মাননীয় সংসদম আলহাজ্ব আকবর হোসেন পাঠান। ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু জাফর সূর্য, তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রিপন মিয়া বক্তব্য রাখেন।

স/এষ্

700
Print Friendly, PDF & Email