ধানমন্ডি দলীয় সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাংগঠনিক নির্দেশনা ও দলীয় গঠনতন্ত্র পরিপন্থী ভাবে সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ একতরফাভাবে বিএনপি-জামায়াতসহ বির্তকীত লোকদের লাখ লাখ টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন ওয়ার্ড কমিটি ও ইউনিয়ন কমিটিতে স্থান দিয়েছেন।

আজ সন্ধ্যায় ধানমন্ডিস্থ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতির রাজনৈতিক কায্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করে সিরাজদিখান উপজেলার তৃর্ণমুল আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা এমন অভিযোগ করেছেন ।

এসময় সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অভিযোগ করে বলেন,বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দলীয় সভাপতি দেশরত্ন শেখ হাসিনার বরাবর ও জেলা আওয়ামী লীগসহ সিরাজদিখান উপজেলার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আমার কাছে দলীয় ত্যাগী নেতাকর্মীরা ও পদ বঞ্চিতরা অভিযোগ করেছেন।

লিখিতভাবে এবং বিতর্কিত পাঁচটি ইউনিয়ন কমিটির নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেছেন। সংগঠনিক কঠোর নির্দেশনা ও গঠনতন্ত্র রক্ষায় দলীয় নেতাকর্মীদের এসব অভিযোগ আমলে নিয়ে যখন সিরাজদিখান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছি।

এ অবস্থায় তৃণমুলের নেতাকর্মীদের অভিযোগ নিস্পত্তি না করে উপজেলা আওয়াামী লীগ সভাপতি রেজুলেশন পরিপন্থী দলীয় গঠনতন্ত্র পরিপন্থী এবং জননেত্রী আপনার নির্দেশনার পরিপন্থী ভাবে সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামীলীগ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ।

বিভিন্ন ইউনিয়নের অভিযোগকারী নেতাকর্মীরা দল রক্ষায় অভিযোগ নিষ্পত্তির জন্য সাংগঠনিকভাবে আমার সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন। নেতাকর্মীদের অভিযোগ নিস্পত্তির জন্য মুন্সিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মহিউদ্দিন সাহেবের সাথে সাক্ষাৎ করে এবং লিখিতভাবে আমি সহায়তা চেয়েছি।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মহিউদ্দিন সাহেব এব্যাপারে সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ কে নির্দেশনা দিয়ে বলেছেন সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আমার সাথে বসে অভিযোগ নিষ্পত্তি করার জন্য বলেছেন। অথচ সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ কোন অভিযোগই আমলে নিচ্ছেনা। এ অবস্থায় সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে ।

তিনি আরো বলেন,সিরাজদিখান আওয়ামীলীগের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ দলীয় নির্দেশনা না মেনে বিএনপি- জামায়াতসহ বিভিন্ন মতাদর্শের এবং অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে একটি সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছেন। সেই সিন্ডিকেট নিয়েই তিনি গঠনতন্ত্র পরিপন্থি ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

এনিয়ে বিভিন্ন পত্রিকাও সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হচ্ছে । দলীয় নেতাকর্মীরা রাজাকারের সন্তান, চাঞ্চল্যকর ছাত্রলীগের নেতা আসিফ হত্যা মামলার আসামীদের দলে পদদিয়েছে । এছাড়া বিএনপি-জামায়াত ও অনুপ্রবেশকারী আওয়ামী লীগ গঠন ও পকেট কমিটি বাতিলের দাবিতে মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করছেন। এঅবস্থায় সিরাজদিখান উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে ।

জামাত-বিএনপি ও অনুপ্রবেশকারী মুক্ত আওয়ামী লীগের প্রতিটি ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন কমিটি গঠন পূর্বক সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণে আপনার হস্তক্ষেপ কামনা করছি ।
অতএব কেন্দ্রীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের উপস্থিতিতে সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামীলীগের একটি সফল ত্রি-বার্ষিকী সম্মেলনের জন্য আশায় বুক বেধে রেখেছি আমরা ।

পরে সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম সোহরাব হোসেনের নেতৃত্বে এক দল নেতাকর্মী কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক দিপু মনির সাথে দেখা করে লিখিত অভিযোগ দাখিন করেন ।

কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ঘটনার স্বত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন অভিযোগের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে ।

স/এষ্

Print Friendly, PDF & Email