বাঙলা কলেজের অবৈধ ভবন উদ্ধার করে বঙ্গবন্ধু ছাত্রাবাস করার দাবি

নিজস্ব প্রতিনিধি : বাঙলা কলেজের পিছনে জায়গা দখল করে ১২ তলা ভবন নির্মাণ করেছে একটি ডেভেলপার কোম্পানি। আর এ ভবনটির উদ্ধার করে বঙ্গবন্ধু ছাত্রাবাস করার দাবি জানিয়েছে কলেজের শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা বলেন, যেখানে আমাদের কলেজের শিক্ষার্থীরাই ছাত্রাবাস সংকটে ভুগছে, জমির অপ্রতুলতার কারণে ছাত্রাবাস নির্মাণ করা যাচ্ছে না। সেখানে কোনভাবেই কোন ভুমিদস্যুকে কলেজের ১ ইঞ্চি জমিও দখল করতে দেওয়া হবে না।

মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী গিয়ে হটাৎ করে কলেজের বেদখল হয়ে যাওয়া জায়গা উদ্ধার করতে যায়।

এছাড়াও শিক্ষার্থীরা দখলদারদের সাইনবোর্ড নামিয়ে প্রস্তাবিত বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছাত্রী হোস্টেলের সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয় এবং দখলদারদের দেওয়াল ভেঙ্গে কলেজের সাথে যাতায়াতের রাস্তা করে দেয়।

এই বিষয়ে বাঙলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড.ফেরদৌসী খান বলেন, ওই যায়গাটা আমাদের এবং ওখানে আমাদের কলেজের সাইনবোর্ড ও লাগানো ছিল।

আমাদেরকে কিছুদিন আগে রোটারী ক্লাব থেকে ৪৫০ টি গাছের চাড়া দেওয়া হয়। আমরা ওই যায়গায় সেই চাড়া রোপন করি। কিন্তু কে বা কারা হটাৎ করে গাছের চাড়াগুলো কেটেফেলে এবং আমাদের সাইনবোর্ড ভেঙ্গে তাদের সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয়।

তিনি আরোও বলেন, এ নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীরা দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করার কথা বলে আসছিল। আমি শিক্ষার্থীদের কে আন্দোলন করতে নিষেধ করে আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বিষয়টি সমাধানের কথা বলি।

কিন্তু আজ হটাৎ করেই শিক্ষার্থীরা গিয়ে জমিটিতে আমাদের সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয়।আমি বিষয়টি জানার সাথে সাথেই আমরা শিক্ষক ও ছাত্রনেতাদের পাঠিয়ে সাধারন শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে আনি।

এই বিষয়ে অধ্যক্ষ বলেন, আমাদের কাছে থাকা তথ্যমতে ওই জমিটিও আমাদের। বাঙলা কলেজের জমি দখল করেই এই ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছে। আমরা ইতিমধ্যেই জমি ফিরিয়ে অনার জন্য আইনি প্রক্রিয়া গ্রহণ করেছি এবং উকিল ঠিক করার কাজটি চলছে। উকিল ঠিক হলেই আমরা আমাদের জমি ফিরিয়ে অনার জন্য যে কোন ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করার দরকার তাই করব।

মেহেদী নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে। যারা বাঙলা কলেজের ৪ বিঘা জমি দখল করেছে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হোক। সেই সাথে কলেজে দখলকৃত জমি উদ্ধার করে চারদিকে প্রাচীর নির্মাণ করা হোক।

আরেক শিক্ষার্থী আমিনুল বলেন, কলেজের জায়গা দ্রুত সময়ের মধ্যে উদ্ধার করে হল নির্মাণ করা হোক, তাতে আবাসিক সমস্যা কমবে। আমরা দাঁড়িয়ে ক্লাস করি এ জায়গা দখল একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হোক।

স/এষ্

Print Friendly, PDF & Email