গৌরীপুর পি জে কে উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবন নির্মান কাজে অনিয়ম

গৌরীপুর ময়মনসিংহ থেকে শেখ বিপ্লব : ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার রামগোপালপুর পি জে কে উচ্চ বিদ্যালয়ের উর্দ্ধমুখী ভবন (৩ তলা) নির্মানে নিন্ম মানের সামগ্রী ব্যবহারসহ বিভিন্ন অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের (ইইউ) অর্থায়নে ১ কোটি ৪৭ লক্ষ ৯১ হাজার ৫ শ ৭০ টাকা ব্যায়ে উর্দ্ধমুখী (৩ তলা) ভবন নির্মানের টেন্ডারের মাধ্যমে কাজটি পায় মেসার্স হাফেজ এন্টারপ্রাইজ। ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ইং সালে কাজটি ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ।

নির্মান কাজের শুরুতেই নিন্ম মানের নির্মান সামগ্রী দিয়ে শুরু করে নির্মান কাজ। পরে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালামের বাধার মুখে পড়ে নন গ্রেডের রড ফেরত নিয়ে গ্রেডের রড আনলেও ইটের ক্ষেত্রে কোন পরিবর্তন ঘটেনি। ২ নাম্বার ইট দিয়ে চলছে বিদ্যালয়ের ভবন নির্মানের কাজ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক নির্মান শ্রমিক জানায়, উর্দ্ধমুখী ভবনটিতে অনিয়মের শেষ নেই, সব জায়গাতেই রড ব্যবহার করা হয়েছে কম। লিংটার যেখানে ৬ ইঞ্চি করার কথা সেখানে করা হয়েছে ৪/৫ ইঞ্চি। লিংটারে রিং দেয়ার কথা ১৫০-২০০ মিলি পর পর সেখানে দেয়া হয়েছে ৩০০-৪০০ মিলি দুরত্বে। ডফ ওয়ালেও রড ব্যবহার করেছে একই দুরত্বে। ট্রাই ভিম ও কলমেও ব্যাপক দুর্নীতি করা হয়েছে। ভবনের প্রতিটা ছাদে সীমাহীন দুর্নীতি করেছে।

পি জে কে উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আঃ সালামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি তার সত্যতা শিকার করে বলেন, অনেক বাঁধা দেয়ার পরে মাত্র রড বদল করতে সক্ষম হয়েছি আর কিছু সম্ভব হয়নি। বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও রামগোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল-আমিন জনি’র সাথে কথা বলেলে তিনিও প্রধান শিক্ষকের সাথে একমত প্রকাশ করেন।

এ ব্যাপারে তদারকি কর্মকর্তা এসিসটেন্ড ইঞ্জিনিয়ার সাইফুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, এমন অনিয়ম থাকলে তার বিরোদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

স/এষ্

Print Friendly, PDF & Email