বদলগাছীতে বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা -জন দূ্র্ভোগ চরমে!

খালিদ হোসেন মিলু বদলগাছী(নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর নওগাঁর বদলগাছীতে সামান্য বৃষ্টি র পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টির কারণে জন দূর্ভোগ চরমে উঠেছে । জানা যায়, উপজেলার সোহাসা গ্রামে সামান্য বৃষ্টি হলেই যেন তলিয়ে যায় সবই। রাস্তাঘাট, দোকানপাট আর বাড়িঘর। মহা দুর্ভোগ নিয়ে আসে বৃষ্টি। ড্রেনেজ ব্যবস্থা অকার্যকর হয়ে পড়ায় সোহাসা গ্রামে বৃষ্টিতে এমন জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে ।

ড্রেন দখল, ভরাট আর যেখানে-সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলে রাখার কারণে বৃষ্টির পানি নামতে অনেক দেরী হয়। ড্রেনকে ভরাট করে দখল করার কারণে এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানান গ্রামবাসী। অল্প সময়ের বৃষ্টিতেই তলিয়ে যায় তোজামের বাড়িতে থেকে এমদাদ এর বাড়ির পর্যন্ত।

ড্রেনেজ ব্যবস্থা অকার্যকর থাকায় দীর্ঘক্ষণ আটকে থাকে পানি। এতে গ্রামবাসীকে পোহাতে হয় চরম দুর্ভোগ। গ্রামবাসীদের নোংরা পানি মাড়িয়ে যেতে হয় গন্তব্যস্থলে। আব্দুর রশিদ বলেন, জলাবদ্ধতার কারনে অনেক কষ্ট করে চলাফেরা করছে গ্রামবাসী । সঠিক পরিকল্পনায় জলাবদ্ধতা নিরসনের ব্যবস্থা নেয়া হলে এমন দুর্ভোগে আর পোহাতে হবেনা গ্রামবাসীদের। স্থানীয় লিটন বলেন,অল্প সময়ের বৃষ্টির পর ইমরানের বাড়ির সামনে রাস্তায় সহ জলাবদ্ধতা দেখা দেয় মসজিদ এর রাস্তা পর্যন্ত । বৃষ্টির পর ১০ থেকে ১৫ দিন পর্যন্ত ঐ রাস্তায় জলাবদ্ধতা থাকে।

সোহাসা গ্রামের ওয়ারেছ মিয়া আক্ষেপ করে বলেন, বৃষ্টি পর এ রাস্তা দিয়ে হেটে মসজিদে যাওয়ার পর মনে সন্দেহ থাকে শরীর পবিত্র আছে তো? প্রতিনিয়ত ড্রেনের ময়লা বৃষ্টির পানির সাথে মিশে ছড়িয়ে পড়ছে সর্বত্র।
গ্রামের ছোট ছোট কমলমতি শিশুদের সাথে কথা বললে তারা জানান, একটু বৃষ্টি হলেই আমাদের খেলার মাঠকে মনে হয় বড় কোন পুকুর। আমাদের মাঠের সামনে অনেক পানি জমে যায়। তাই মাঠে একা আসতে ভয় হয়।

রকি বলেন, একটু বৃষ্টি হলেই পানি জমে বাড়ী উঠান তলিয়ে যায় ছেলে মেয়েরা স্কুলে যেতে অনেক সময় পানিতে পড়ে জামা কাপড় নোংরা পানিতে নষ্ট হয়ে যায়। কিন্তু বিষয়টির আজও কোন সুরাহা হয়নি। গত কয়েকদিনের গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে ঘর-বাড়ীর আঙ্গিনা, রাস্তা তলিয়ে গিয়েছে।চরম ভোগান্তিতে পড়েছে সোহাসা গ্রামের অর্ধশতাধিক পরিবার। খুব তারাতাড়ি ড্রেন নির্মাণ করে পানি নিষ্কাশন করলে গ্রামবাসী
অনেক উপকৃত হবে।

এবিষয়ে,উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুম আলী বেগ বলেন,আমি স্থানীয় ইউ পি চেয়ারম্যান সাহেবকে বলেছি ঐ যায়গায় নতুনএকটি প্রকল্প দিয়ে খুব তারাতাড়ি সমস্যাটি সমাধানের চেষ্টা করা হবে।

স/এষ্

Print Friendly, PDF & Email